নাসার নভোযান থেকে সংগ্রহ করা পাথর ছিটকে পড়ছে মহাকাশে

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ১২:০৯ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২০২০

রহস্যময় পৃথিবীকে জানার জন্য নাসার বিজ্ঞানীরা পৃথিবী থেকে কোটি কোটি কিলোমিটার দূরের এক গ্রহাণু থেকে পাথরের খণ্ড সংগ্রহ করতে একটি মহাকাশযান পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু মহাকাশযানটি পাথরের নমুনা বেশি সংগ্রহ করার কারণে তা সেই যান থেকে উপছে পড়ে মহাকাশে ছড়িয়ে যাচ্ছে।

 সূর্যের উত্তাপে পৃথিবী আলোকিত সেই সৌরমণ্ডল কিভাবে গঠিত হয়েছে তার রহস্যকে জানার জন্য সেখান থেকে সংগ্রহ করা নমুনাগুলো অনেক গুরুত্বপূর্ণ বলে জানায় নাসা।
বিবিসির খবরে বলা হয়, নাসার মহাকাশযান অসিরিক্স-রেক্সএর কর্মকর্তারা বলেন, এ সপ্তাহের গোড়ার দিকে নভোযানটি বেন্নু নামে গ্রহাণুতে অবতরণ করে। খুব ভালভাবে সম্পন্ন করেছিল যানটি প্রস্তরখণ্ড সংগ্রহের জন্য। 
তারা আরও বলেন, সেখান থেকে যেসব ছবি পাঠিয়েছে তাতে দেখা যায়, একটি পাথরখণ্ড বেরিয়ে থাকার কারণে অন্য নমুনা সংগ্রহের একটি আধারের দরোজা অল্প কিছু ফাঁকা হয়ে গেছে। যার কারণে সেখান থেকে সংগ্রহ নমুনার অংশ ছিটকে বেরিয়ে যাচ্ছে।
অন্যদিকে নাসার বিজ্ঞানীরা এখন চেষ্টা করে যাচ্ছে, নিরাপদে একটি ক্যাপসুলে প্রস্তরখণ্ডগুলো প্রবেশ করানো যায় কি না।
যে সকল গুরুত্বপূর্ণ পাথরখণ্ডের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল তার একটি বড় অংশ বেরিয়ে যাচ্ছে বলে জানান মিশনের প্রধান ডান্তে লওরেত্তা। আরও বলেন নভোযান যন্ত্রটি আনুমানিক প্রায় ৪০০ গ্রাম ওজনের পাথরের খণ্ড সংগ্রহ করেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। মহাকাশযানটি এর চেয়ে বেশি নমুনা সংগ্রহ করার ক্ষমতা নেই।
ডান্তে লওরেত্তা বলেন, আমি দারুণভাবে উদ্বিগ্ন, প্রস্তুরখণ্ডগুলোর টুকরো ভেতর থেকে যে বাইরে ছড়িয়ে যাচ্ছে। এসব ভেবে খারাপ লাগছে কারণ এখানে নিজেদের সাফল্য ব্যর্থ হয়েছে।
নাসার বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী প্রশাসক টমাস জারবুশেন সাংবাদিকদের বলেন, এখন আমাদের প্রধান লক্ষ্য হলো ভেতরে যতটুকু রয়েছে তা যেন আর বেরিয়ে না আসে এবং বেরিয়ে যাওয়াকে আটকাতে কাজ করা হচ্ছে।
অসিরিক্স-রেক্স মিশনের এসব প্রস্তরখণ্ড পৃথিবীতে নিয়ে আসার কথা রয়েছে ২০২৩ সালে ।