অ্যাকাউন্ট সুরক্ষার পদ্ধতি

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৭, ২০২১, ০৪:১১ দুপুর
আপডেট: নভেম্বর ১৭, ২০২১, ০৪:১১ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

তথ্য ও প্রযুক্তি ডেস্ক ঃ সম্প্রতি কিছু অ্যাকাউন্টকে টার্গেট করছে হ্যাকাররা। এমনকি টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন বা টু-স্টেপ-ভেরিফিকেশনকেও পাশ কাটিয়ে হ্যাক করা হচ্ছে। নজরদারি চালানো হচ্ছে গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্যে। এই নিয়ে ইতিমধ্যে সতর্কতা জারি করেছে বিভিন্ন সাইবার সিকিউরিটি সংস্থা। প্রযুক্তি বিশ্বে যে কোনো কিছুই একশো শতাংশ নিরাপদ নয় তা অনেকেই জেনে গেছেন কিন্তু নিরাপত্তার স্তর বাড়াতে বিভিন্ন টেক কোম্পানি তৈরি করেছে টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন পদ্ধতি। 
এই সিস্টেমে সাধারণ সিস্টেমের তুলনায় হ্যাক করা বেশ কঠিন বলে মনে করেন সাইবার বিশেষজ্ঞমহল। ইন্টারনেটে উপলব্ধ অবৈধ বটস-র মাধ্যমে এই নিরাপত্তা স্তর ভাঙার চেষ্টা করছে সাইবার অপরাধীরা। এই বটস স্বয়ংক্রিয় স্ক্রিপ্ট পড়ার জন্যই বিশেষ ভাবে তৈরি করা হয়েছে। জানা গেছে, বর্তমানে এই বটস মূলত অ্যামাজন, পেপ্যাল, ভেনমো, ব্যাংক অফ আমেরিকা এবং চেজের মতো কিছু অনলাইন পরিষেবা সাথে যুক্ত ব্যবহারকারীদের টার্গেট করছে। যেভাবে হোক সংবেদনশীল তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ফন্দি খুঁজে বের করছে সাইবার দুনিয়ার অপরাধীরা।
তবে সাইবার বিশেষজ্ঞদের মত টু স্টেপ ভেরিফিকেশন ভাঙা অতটা সহজ নয়, তাই আপাতত নিরাপদ আপনার অ্যাকাউন্ট। সাধারণত, এই টু-স্টেপ-ভেরিফিকেশন পদ্ধতিতে একটি কোড ব্যবহৃত হয়। অনেক সময় ফিসিংয়ের মাধ্যমে ওটিপি বা এই ধরণের কোড হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে জালিয়াতরা। কিন্তু টু-স্টেপ-ভেরিফিকেশন সিস্টেমের কোড যেহেতু কোনো ওটিপি মারফত আসে না তাই বাইপাস করলেও এটি হ্যাক করা বেশ কঠিন তাদের পক্ষে। তাই সাইবার বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, যেকোনো অ্যাকাউন্টে টু ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন বা টু-স্টেপ-ভেরিফিকেশন করা থাকলে সেই কোড বা পাসওয়ার্ড কারও সাথে শেয়ার করবেন না। এটি আপনার অ্যাকাউন্টের শেষ নিরাপত্তা রক্ষী।
 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়