বগুড়া লেখক চক্র : বত্রিশ বছরের পথচলা

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ০৭:৪১ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

ইসলাম রফিক: বগুড়া লেখক চক্রের কথাঃ কোন জনপদের চিন্তাধারার প্রতিনিধি, কন্ঠস্বর, বিবেকের অনুশাসন হিসেবে কবি, শিল্পী, সাহিত্যিক, সাংবাদিক সৃজনশীল প্রতিটি মানুষই ভূমিকা রাখেন। এভাবেই সম্মিলিত ভাবধারায় একটি সমগ্র চিত্র অংকিত হয়। বৈচিত্র্য নিয়ে অনুভূতির বিন্দু বিন্দু পললে ঘাত-প্রতিঘাত ও লড়াই-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে মানুষ সভ্যতাকে বিনির্মাণ করে। শস্ত্র যেখানে কলম, দানব শক্তিও সেখানে ভীত, কুন্ঠিত হয়। লেখক মানুষের নিরাপোষ অবলম্বনের প্রতিনিধি। লেখকের লেখার স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে। জীবনের মৌলবিশ¡াস ধ¡নিত হোক শিল্পীর স্বাধীনতায়। মানুষের চিন্তাধারা, কন্ঠস্বর, সভ্যতার বিকাশধারা, অনুভূতির শতরূপ জটিলতা কলমের ঝর্ণাধারায় প্রবাহিত হোক। জীবন আবিষ্কৃত হোক। হন্তারকের অশুভ হাত মানবীয় অনুভূতিকে  দুমড়ে-মুচড়ে দলিত মথিত করতে উদ্যোগী। দেশে দেশে শান্তিকামী মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। যুদ্ধ আর সহিংসতার বিরুদ্ধে শান্তিকামী মানুষেরা আজ সোচ্চার কন্ঠ।

 দুঃসময়ের এই পাদপীঠে দাঁড়িয়ে ১৯৮৮ খৃষ্টাব্দের ১৬ সেপ্টেম্বর বগুড়া লেখক চক্রের জন্ম। নবীন-প্রবীণ, অসাম্প্রদায়িক আর ও মুক্তচিন্তায় বিশ¡াসী সকলের জন্য একটি উন্মুক্ত সংগঠন বগুড়া লেখক চক্র। আজ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, বগুড়া লেখক চক্রের ৩২ বছর পূর্তি। আজকের দিনে বগুড়া লেখক চক্রের প্রতিষ্ঠাতা সকল সদস্য, যারা বগুড়া লেখক চক্রকে বিভিন্ন সময় নেতৃত্ব দিয়ে এসেছেন, সকল শুভাকাঙ্খী, সাংবাদিক বন্ধুদের এবং প্রথম দিন থেকে আজ পর্যন্ত যারা বগুড়া লেখক চক্রের সাথে কাজ করেছেন, বিভিন্ন রকমভাবে যারা সহযোগিতা করেছেন, তাদের সকলকেই বগুড়া লেখক চক্রের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি, কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি এবং অভিনন্দন জানাচ্ছি। বগুড়া লেখক চক্র এখন জাতীয় পর্যায়ের সংগঠন।

বগুড়া লেখক চক্র এমন একটি সংগঠন যার ধারাবাহিকতা এখনও অক্ষুন্ন। বগুড়া লেখক চক্রের মতো এমন উজ্জীবীত, কর্মক্ষম, সুসংগঠিত ও গণতান্ত্রিক সংগঠন থাকার ফলে বগুড়াতে তরুণরা বেড়ে উঠছে কবি হিসেবে, সাহিত্যিক হিসেবে, লিটল ম্যাগাজিন কর্মি হিসেবে। অরাজনৈতিক এই সাহিত্য সংগঠনটি বগুড়া সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটভুক্ত সংগঠন। সংগঠনের কার্যক্রমঃ সাহিত্য সংগঠন হিসেবে বগুড়া লেখক চক্রের ৩২ বছরের পথচলা গর্বের এবং অহংকারের। এর অংশীদার বগুড়ার সকল মানুষ। যে কয়টি প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে বগুড়াবাসী গর্ব করতে পারেন, তার মধ্যে বগুড়া লেখক চক্র অন্যতম। প্রতিবছর ২৬টি করে পাক্ষিক সাহিত্য আসরের পাশাপাশি তরুণ ছেলেমেয়েদের লেখালেখিতে উদ্বুদ্ধ করতে কবিতার ক্লাস, লেখালেখি বিষয়ক কর্মশালা, বই প্রকাশ করতে সহযোগিতা, সংগঠনের মুখপত্র ‘ঈক্ষণ’ এর ধারাবাহিক প্রকাশ ইত্যাদি আমাদের কার্যক্রমের অংশ। এর বাইরে প্রতিবছর কবি সম্মেলন, কবি সাহিত্যিকদের জন্মদিন, মৃত্যুদিবস পালন, বইমেলায় অংশগ্রহণ, বইপ্রকাশ, কবিদের বিভিন্নভাবে সম্মান জানানোসহ অন্যান্য কাজ। প্রতিবছর জমকালোভাবে পালন করা হয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য  প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রদান করা হয় বগুড়া লেখক চক্র সম্মাননা।

কার্যনির্বাহী পরিষদ ঃ বগুড়া লেখক চক্রের প্রথম কার্যনির্বাহী পরিষদে ছিলেন শেখ ফিরোজ আহমেদ বাবুর নেতৃত্বে পলাশ খন্দকার, মাহমুদ হোসেন পিন্টু, পিয়াল খন্দকার, শিবলী মোকতাদির, ফখরুল আহসান এবং মিঠু হোসেন। শেখ ফিরোজ আহমেদ (প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি) এর পর সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন শোয়েব শাহরিয়ার, এ্যাড. পলাশ খন্দকার, আরিফ রেহমান এবং ইসলাম রফিক (বর্তমান)। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন পিয়াল খন্দকার (প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক), সৈয়দ মাহবুব হিরু, পান্না করিম, হাবীবুল্লাহ জুয়েল, সুপান্থ মল্লিক, অরণ্য প্রভা, জয়ন্ত দেব, আমির খসরু সেলিম এবং কামরুন নাহার কুহেলী।

সমস্যাঃ সংগঠন হিসেবে বগুড়া লেখক চক্রকে জাতীয়ভাবে পরিচিত, এর সাংগঠনিক কাঠামোও শক্তিশালী। কিন্তু সংগঠনের আর্থিক অবস্থা খুবই দুর্বল। সংগঠনের সদস্যদের মাসিক চাঁদা আর শুভাকাঙ্খীদের অনুদানে চলে এই সংগঠনটি। নাই নিজস্ব কোন কার্যালয় কিংবা স্থায়ী কোন ফান্ড। সরকারী বেসরকারী অনুদান থাকলে ঘর ভাড়াসহ বিভিন্ন রকম অনুষ্ঠানে সহযোগিতা হতো। আজ ৩২ বছর পূর্তির দিনে আমরা বগুড়া লেখক চক্রের জন্য একটা স্থায়ী কার্যালয় আর আর্থিক ফান্ডের আবেদন জানাচ্ছি আপনাদের কাছে। কেননা একমাত্র সাহিত্যই পারে সুন্দর মনন তৈরী করতে যা জাতি গঠনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। একটি মানবিক সমাজ গড়ে তুলতে সাহিত্যের বিকল্প কিছু হতে পারে না। আপনাদের সবার সহযোগিতা নিয়ে বগুড়া লেখক চক্র গত বত্রিশ বছর ধরে যেভাবে পথ চলেছে, আগামী দিনেও সেভাবে আপনাদের সহযোগিতা চায়। বগুড়া লেখক চক্র আপনার সংগঠন, একে টিকে রাখার দায়িত্ব আপনার। সবাইকে আবারও অভিনন্দন।  
লেখক ঃ সভাপতি, বগুড়া লেখক চক্র
kobiislamrafiq@gmail.com
০১৭১২-৬২৬৪২৬