ধুনটে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গাছ কেটে জমি দখলের চেষ্টা

OnlineStaff OnlineStaff
প্রকাশিত: ০৯:৩২ পিএম, ২৪ এপ্রিল ২০২১

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার ধুনট উপজেলায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিবাদমান জমি থেকে গাছ কেটে সেখানে ঘর নির্মাণ করে দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার পিরহাটি গ্রামের ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।   অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পিরহাটি গ্রামের আব্দুর রহমানের সাথে তার বোন আলুফা খাতুনের পৈত্রিক সাড়ে ১৭ শতক জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধ রয়েছে। বিবাদমান জমিতে আলুফা খাতুন প্রায় ১৫ বছর আগে বাগান ও বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন। এ অবস্থায় আব্দুর রহমান ওই জমির অংশ থেকে ১২ শতক জমি একই এলাকার শাহ জামালের কাছে বিক্রি করেন। ফলে ভাইয়ের বিক্রি করা জমি ফেরত পেতে ২০০৯ সালে আলুফা খাতুন বাদি হয়ে শাহ জামালের বিরুদ্ধে আদালতে প্রিয়েমশন মামলা দায়ের করেন। মামলাটি শুনানি শেষে ২০১০ সালে আদালত থেকে ওই জমির উপর স্থিতী অবস্থা জারি করা হয়। এ অবস্থায় শাহ জামাল তার লোকজন নিয়ে গত শুক্রবার বিবাদমান জমি থেকে দুই লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ১৭ ইউক্যাপিল্টাস গাছ কেটে বিক্রি করে সেখানে বসতঘর তোলে। এ ঘটনায় আলুফা খাতুনের স্বামী সিরাজুল ইসলাম বাদি হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ওই জমির মালিকানা দাবি করে শাহ জামাল বলেন, আলুফা খাতুনের ভাইয়ের কাছ থেকে গাছসহ ওই জমি কিনে নিয়েছি। তাই আমি গাছগুলো কেটে বিক্রি করে সেখানে ঘর তুলেছি। ওই জমি নিয়ে আদালতে বিচারাধিন মামলাটি আইনীভাবে মোকবেলা করা হবে। আলুফা খাতুনের স্বামী সিরাজুল ইসলাম বলেন, শাহ জামাল ভাড়া করা লোকজন নিয়ে গাছগুলো কেটে বিক্রি করে দিয়েছে। এ বিষয়ে থানায় অভিযোগের পরেও তারা গাছগুলো কেটে নেয়। এসময় বাধা দিলে তারা আমাকে মারপিটের হুমকি দেয়। ধুনট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রদীপ কুমার বর্মণ বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই বিবাদমান জমি থেকে গাছগুলো কেটেছে। পরে গাছের কাটা অংশ জব্দ করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের জিম্মায় রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনী প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।