শিশুদের নির্মিত শহীদ মিনার টুকরো টুকরো করে দিলেন ইমাম

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ০৮:৫০ এএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:  আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কলাগাছ দিয়ে শিশুদের নির্মিত শহীদ মিনার দা দিয়ে কেটে টুকরো টুকরো করেছেন মসজিদের এক ইমাম। পটুয়াখালীর বাউফলের কাছিপাড়া গ্রামে গতকাল এ অবাঞ্চিত ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে পুলিশ গেলে ইমাম গা ঢাকা দেন বলে জানা গেছে।স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কাছিপাড়া ইউনিয়নের মধ্য কাছিপাড়া গ্রামের আদম আলী হাওলাদার বাড়ির দরজায় গ্রামের শিশুরা আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষে কলাগাছ দিয়ে শহীদ মিনার নির্মাণ করেছিল।  গত শনিবার বিকেলে শিশুরা ১০-২০ টাকা করে দিয়ে বাজার থেকে রঙিন কাগজ, রং ও সুতা এনে শহীদ মিনার সাজিয়ে রাখে। গতকাল সকালে গ্রামের শিশুরা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে গেলে বায়তুল নূর জামে মসজিদের ইমাম মো. রায়হান মক্তবে না গিয়ে কলাগাছে ফুল দিতে এসেছো বলে শিশুদের গালমন্দ করেন। এরপর তিনি দা দিয়ে শিশুদের সাজানো শহীদ মিনার কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলে দেন। এ ঘটনায় শিশুরা ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে পড়ে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই গ্রামের একাধিক ব্যক্তি জানান, রায়হান হুজুর ওটাকে পূজা করার সমতুল্য বলে শিশুদের গালাগাল করেন। তবে গ্রামের মানুষ শিশুদের মাতৃভাষা দিবস পালনে বাধা দেয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।এ ঘটনা বাউফল থানা পুলিশ জানতে পারলে এসআই মাধবের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে ইমাম রায়হান গা ঢাকা দেয়।বিষয়টি সম্পর্কে জানতে ইমাম রায়হানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।স্থানীয় বাসিন্দা বাউফল উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মরিয়ম বেগম নিশু জানান, ঘটনাটি জেনেছি। স্থানীয় চেয়ারম্যান সমাধানের জন্য এলাকাবাসীদের নিয়ে বসেছেন। চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান, সমাধানের জন্য বৈঠকে বসা হয়েছিল। ইমাম কৌশলে বৈঠক থেকে পালিয়ে গেছে।বাউফল থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ঘটনা জানার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পুলিশের খবর পেয়ে ইমাম রায়হান গা ঢাকা দিয়েছে। শিশুদের মানসিক কষ্ট লাঘবে তাদেরকে বোঝানো হয়েছে।