বরেন্দ্র অঞ্চলে আম বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষিরা

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ১০:৪৪ এএম, ৩০ জানুয়ারি ২০২১

পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি : এখন চলছে মাঘ মাস। বরেন্দ্র অঞ্চলের আম গাছগুলোতে মুকুল আসতে এখনো দেরি। মাঘ মাস শেষ হয়ে ফাল্লুন মাসের শুরুর দিকে হালকা গরমে বাগানের প্রায় সব আম গাছে মুকুল আসতে শুরু করবে। এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে বরেন্দ্র অঞ্চলের আম চাষিদের আগাম গাছ পরিচর্যা।মুকুল আসার আগ মুহূর্তে গাছের বাড়তি যতেœর প্রয়োজন হয়। তাই ছোট-বড় আম বাগান পরিচর্যায় চাষিরা বর্তমানে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তারা বাগানের আগাছা পরিষ্কার করে সেচ, সার দিচ্ছেন। পোকা দমনে ছিটাচ্ছেন কীটনাশক। এতে পোকা যেমন দূর হবে, তেমনি গাছে দেখা দেবে স্বাস্থ্যকর মুকুল। ফলন হবে ভাল। বরেন্দ্র অঞ্চল নওগাঁর পোরশা উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, প্রতিবছর দেশে উৎপাদিত মোট আমের সিংহভাগ নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলের। গত দেড় যুগ ধরে নওগাঁর বরেন্দ্র অঞ্চলে গোপালভোগ, হিমসাগর, লেংড়া, ফজলি, আশ্বিনা, আমরূপালী, বারী-৩, বারী-৪ ও লখনাসহ নানান জাতের আম চাষ হয়ে আসছে।  অনান্য ফসলের চেয়ে আমে লাভ বেশি হওয়ায় দিন দিন চাষিরা আম চাষে আরো আগ্রহী হয়ে উঠছেন।
পোরশা উপজেলার ছাতিয়া গ্রামের আম চাষি আহসান হাবিব জানান, অধিক মুনাফার আশায় মৌসুমের আগেই বাগানের যতœ নেয়া শুরু করেছেন তারা। বিশেষ করে এসময় তারা গাছে কীটনাশক স্প্রে করার প্রতি বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবছর আমের বাম্পার ফলন হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। পোরশা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মাহফুজ আলম জানান, নওগাঁ জেলায় আম চাষ হচ্ছে প্রায় ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে শুধুমাত্র পোরশা ও সাপাহার উপজেলায় আম চাষ হচ্ছে প্রায় ১৬হাজার হেক্টর জমিতে। আর প্রতি বছর প্রায় ১হাজার হেক্টর নতুন নতুন জমিতে আম বাগান তৈরি হচ্ছে। আবহাওয়া ভাল থাকলে এবারও আমের বাম্পার ফলন হবে বলে তিনিও আশা প্রকাশ করেন। আর এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে চাষিদের বিভিন্ন নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে বলেও তিনি জানান।