অসাবধানতার কারণে বাড়ছে বিদ্যুতায়িত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ০৭:২৭ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০২০

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : অসাবধানতা আর ত্রুটিপূর্ণ বিদ্যুৎ লাইনের কারণে ঝিনাইদহে বেড়েছে বিদ্যুতায়িত হয়েছে মৃত্যুর সংখ্যা। ঝিনাইদহ জেলা পুলিশ অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত জেলার ৬ উপজেলায় ৪২ জন বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছেন। যা ২০১৯ সালে ২৪ জন ও ২০১৮ সালে ছিল ১৮ জন। ২ বছরের ব্যবধানে অর্ধেকের বেশি মানুষ বিদ্যুতায়িত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন। এর মধ্যে পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক সংখ্যা বেশি।

ঝিনাইদহের পল্লী বিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) ইছাহক আলি বলেন, গত ২ বছরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টের সংখ্যা বাড়ছে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, গ্রামের বাড়িতে বিদ্যুতের ওয়ারিং ব্যবস্থা পুরাতন, তার ছিড়ে যাওয়া আর বিদ্যুৎ ব্যবহারে অসাবধানতার কারণে এ দুর্ঘটনা বাড়ছে। এছাড়াও শিশুদের বিদ্যুৎ লাইন ব্যবহার করার কারণে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। তিনি বলেন, দুর্ঘটনা কমাতে হলে পুরাতন ওয়ারিং বাদ দিয়ে নতুন করে ঘরে ওয়ারিং করতে হবে এবং বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।

জেলার মানবাধিকার কর্মী আমিনুর রহমান টুকু বলেন, বিদ্যুৎ লাইনের তার ছিড়ে অনেক সময় মানুষ মারা যাচ্ছে। এক্ষেত্রে বিদ্যুৎ বিভাগকে আরও সচেতন হতে হবে। গ্রামের মানুষকে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সচেতন করতে মাইকিং বা সেমিনারের আয়োজন করতে হবে। তবেই কমবে মৃত্যুর সংখ্যা।জানা যায়, ঝিনাইদহের ৬ উপজেলায় ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্টিবিউশন কোম্পানি লি. এর গ্রাহক সংখ্যা প্রায় দেড় লাখ এবং পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক সংখ্যা ৩ লাখ ৭৬ হাজার।