বুড়িমারী স্থলবন্দরে করোনা সংক্রমণের শঙ্কা: শনাক্তে নেই অ্যান্টিজেন টেস্ট

Online Desk Aminul Online Desk Aminul
প্রকাশিত: ০৯:১৬ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২২

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দরে করোনাভাইরাস শনাক্তে অ্যান্টিজেন টেস্ট এখনো শুরু করা হয়নি। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে এ ধরনের কোন নির্দেশনা দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো: সাইফুল ইসলাম।
সরেজমিনে গত বৃহস্পতিবার বুড়িমারী স্থলবন্দরে গিয়ে দেখা গেছে, এ স্থল বন্দরের চেকপোস্ট দিয়ে ভারতীয় আমদানি করা পণ্যবাহী ট্রাকের চালক ও  ভারত ফেরত পাসপোর্টধারী যাত্রীদের শুধু হ্যান্ড স্ক্যানার দিয়ে তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। ইমিগ্রেশন চেক পোস্ট দিয়ে ভারত থেকে আসা সকল পাসপোর্ট যাত্রীদের ৭২ ঘন্টা মেয়াদি করোনাভাইরাস নেগেটিভ সনদ দেখাতে হচ্ছে। এখন বর্তমানে ভারত ও নেপাল থেকে স্টুডেন্ড ভিসায় শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশে আসছেন। আর বাংলাদেশী যারা ভারত থেকে আসছেন তারা মেডিক্যাল ভিসায় ভারত চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। তাছাড়াও বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাচ্ছে ভারত ও নেপালের পাসপোর্ট যাত্রীরা। চলতি  জানুয়ারি মাসের ১১ ও ১২ তারিখে পর্যন্ত এই স্থলবন্দর দিয়ে ১১ জন বাংলাদেশে এসেছে ও বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়েছে ১০জন পাসপোর্টধারী যাত্রী। এখন গড়ে প্রতিদিন ভারত থেকে ৩০০ থেকে ৪৫০ পণ্যবাহী ট্রাক আসে এ বন্দরে। গত এক সপ্তাহে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন ও আইসোলেশনে কোন পাসপোর্টধারী যাত্রী নেই।
উপজেলা প্রশাসন নির্দেশনা অনুযায়ী প্রাকৃতিক প্রয়োজন ছাড়া ভারতীয় ট্রাক চালকদের ট্রাকের মধ্যে অবস্থান করতে হবে। তার পরেও  কিছু ভারতীয় ট্রাক চালকদের স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বন্দর এলাকায় ঘুরতে দেখা গেছে। এর ফলে করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন সংক্রমণ ছড়ার আশঙ্কা করছে বুড়িমারী ইউনিয়নের বাসিন্দারা।
বুড়িমারী ইউনিয়নের বাসিন্দা নুর আলম বলেন, ভারতে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন সংক্রমণ বেড়েছে। কিন্তু ভারত থেকে পন্য নিয়ে আসা  ট্রাক চালক অনেকে মাস্ক ছাড়া বাহিরে ঘোরা ফেরা করে। এতে করে ওমিক্রন সংক্রমণ বুড়িমারী ইউনিয়নে ছড়াতে পারে।
বুড়িমারী স্থল শুল্ক স্টেশনের কাস্টমসের ডেপুটি কমিশনার (ডিসি) মো. কেফায়েত উল্যাহ মজুমদার বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা কাস্টমসের সকল কার্যক্রম পরিচালনা করছি। কাস্টমসের সেবা গ্রহীতা  বা সি অ্যান্ড এফ যারা আছেন তাদের মাস্ক পড়াসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য বলা হয়েছে। তাঁরাও নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করছেন।’
বুড়িমারী স্থলবন্দরের বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সহকারি পরিচালক (এডি) রুহুল আমিন বলেন, করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ে সচেতন করার জন্য মাইকিং করে প্রচার প্রচারণা চালানো হচ্ছে। তবে ভারতীয় ট্রাক চালক ও বন্দরের শ্রমিকদের মাস্ক পড়াসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রন ও প্রতিরোধে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্থলবন্দরে কার্যক্রম পরিচালনা করছি। তাছাড়াও এ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আসা ট্রাকের চালক ছাড়া চালকের সহকারি আসতে পারবেন না।
পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পরিকল্পনা রয়েছে। তবে এখনও স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে নিদের্শনা আসেনি। নির্দেশনা পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও পড়ুন