সাড়ে ৪ বছর পর জামিনে মুক্ত বগুড়ার সেই তুফান সরকার

প্রকাশিত: জানুয়ারী ১৬, ২০২২, ০৯:১২ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ১৬, ২০২২, ০৯:১২ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

করতোয়া ডেস্ক: প্রায় সাড়ে ৪ বছর পর ছাত্রী ধর্ষণ এবং ওই মেয়ে ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার মামলার প্রধান আসামি বহুল আলোচিত বগুড়ার তুফান সরকার কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। গত ১০ জানুয়ারি বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বগুড়া কারাগার থেকে বের হন তিনি। জেল সুপার মনির আহমেদ গতকাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে একাধিক মামলায় জামিন হলেও ভিন্ন মামলায় শোনঅ্যারেস্টে থাকার কারণে তার মুক্তির পথ রুদ্ধ হয়ে ছিল।
আজ রোববার দুপুরে বগুড়ার জেল সুপার বলেন, গত ১০ জানুয়ারি তুফান সরকারের জামিনের কাগজপত্র কারাগারে পৌঁছে। এরপর সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে সেদিন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান তিনি।

">


জানা গেছে, তুফান সরকারের বিরুদ্ধে মোট আটটি মামলা চলমান ছিলো। এরমধ্যে আলোচিত ছাত্রী ধর্ষণ এবং মাথা ন্যাড়ার মামলাটি বাদী পক্ষ আদালতে পুলিশের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ মামলা করার অভিযোগ এনে এফিডেফিট করেন। এ কারণে অনেক আগেই আলোচিত এ মামলায় তুফান সরকারের জামিন হয়। এরপরও অন্যান্য মামলা থাকায় দীর্ঘ  প্রায় সাড়ে ৪ বছর কারাগারে ছিলেন তিনি।
সর্বশেষ মানিলন্ডারিং আইনে করা এক মামলার শুনানি শেষে হাইর্কোট গত ৫ জানুয়ারি তুফান সরকারের জামিন দেন। এরপর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে এ সংক্রান্ত নথিপত্র গত ১০ জানুয়ারি বগুড়া কারাগারে পৌঁছায়। পরে ওই দিনই কারাগার থেকে মুক্ত হন তুফান সরকার। এর আগে ২০১৭ সালের ২৯ জুলাই সদর থানায় করা মামলার আসামি হিসেবে কারাগারে যান তিনি।
আলোচিত এই মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো: আবুল কালাম আজাদ বলেন, সব মামলায় তুফান সরকারের জামিন হয়েছে বলে শুনেছি এবং সেইসাথে কারাগার থেকেও তিনি ছাড়া পেয়েছেন বলেও জেনেছি।  
তুফান সরকারের বড় ভাই বগুড়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুল মতিন সরকার বলেন, জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর থেকে তুফান বাড়িতে রয়েছেন। তিনি বলেন,তার সঙ্গে অনেক অন্যায় করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, অভিযোগ তদন্ত করে আদালত যা রায় দেবেন সেটাই মেনে নেবেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়