মুষ্টির চালে খরচ জুগিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী শেফালী পারভীন

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৯, ২০২১, ১১:৫৭ দুপুর
আপডেট: নভেম্বর ১৯, ২০২১, ১১:৫৭ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

হেলাল আহমেদ, সিরাজগঞ্জ থেকে ঃ দ্বিতীয়বারের প্রচেষ্টায় সফল হয়েছেন সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার  খোকসাবাড়ী ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী নারী নেত্রী শেফালী পারভীন। কোন রাজনৈতিক দলের সমর্থন না নিয়েই শুধুমাত্র নিজগ্রামের মানুষের বিশেষ করে  পুরো ওয়ার্ডের নারীদের সমর্থন ও ভালোবাসা নিয়ে বিপুল ভোটে তিনি নির্বাচিত হন। তার নির্বাচনী পোষ্টার ছাপানোসহ প্রচার কাজের জন্য অধিকাংশ খরচ জুগিয়েছেন গ্রামের নারীরাসহ পুরো ওয়ার্ডবাসী।
সমাজের নারী শিশু ও অসহায় দরিদ্রদের পাশে দাঁড়িয়ে সেবাদানকারী হিসেবে সুপরিচিত শেফালী পারভীন ১৭৪০ ভোট পেয়ে  নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিদায়ী ইউপি সদস্য বেবী খাতুন মাইক প্রতীক পেয়েছেন ৮২০ ভোট। প্রায় ১ হাজার ভোটের ব্যবধানে শেফালী পারভীন জয়ী হয়েছেন। এই নারী সংরক্ষিত আসনে প্রার্থী ছিলেন ৭ জন নারী। তাদের মধ্যে দ্বিতীয় হয়েছেন হাসিনা খাতুন ৫২০ ভোট পেয়ে এবং  তৃতীয় হয়েছেন কোহিনুর বেগম কলম প্রতীক নিয়ে ৪৮০ ভোট। আমেলা খাতুন ৩৬০ ভোট, মুক্তা খাতুন ২৬৯ ভোট এবং হাসি খাতুন ১২০ ভোট পেয়ে পরাজিত হন।
শেফালী পারভীন একজন সুগৃহিনী এবং একজন আদর্শ নারী সমাজকর্মী  হিসেবে সুপরিচিত। স্বামী মো: ওয়াজেদুল ইসলাম জুয়েলের  সর্বাত্মক সহযোগিতায় সমাজের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তার সামাজিক কাজে মুগ্ধ হয়েই তাকে গ্রামবাসী পাচিল  পশ্চিম পাড়া গ্রাম সমিতির সভাপতি, খোকসাবাড়ী ইউনিয়ন নারী সংস্থার সভাপতি, স্থানীয় বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা মডার্ন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের  সভাপতি, পাচিল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য এবং পাচিল কমিউনিটি হাসপাতালের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ সামাজিক কাজ করে সকলের দৃষ্টি কাড়েন।  এইচএসসি  পাশ শেফালী পারভীন নিজ পরিবারে প্রতিও যত্নশীল। এক মেয়ে দুই ছেলে সিরাজগঞ্জ সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে অনার্স ও মাষ্টার্সে পড়াশুনা করছে। 
শেফালী পারভীন এলাকাবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, এলাকার নারীরা তার জন্য বাড়ী বাড়ী গিয়ে মুষ্টির চাউল সংগ্রহ করে  এবং নিজেরা চাঁদা দিয়ে নির্বাচনের  জন্য পোষ্টার, লিফলেট, মাইকিং  ও শোডাউন  করেছে। এখন তার দায়িত্ব এলাকাবাসীর ঋন পরিশোধ করা। যতটুকু ক্ষমতা পাবেন তাকে কাজে লাগিয়েই এলাকায় নারীদের উন্নয়ন করেবেন। নারীদের শিক্ষিত করে বাল্য বিয়ে বন্ধ এবং এলাকায় মাদক বন্ধে বিশেষ কার্যক্রম গ্রহন করবেন। নারীদের বিজ্ঞান মনস্ক এবং আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচয় ও জ্ঞানবান করতে কাজ করবেন। এজন্য  তিনি পুরুষদের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেছেন।
 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়