বগুড়ায় মাছের বাজারে করোনার সংক্রমণ, একদিনে সর্বোচ্চ ২৫জন শনাক্ত

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ১১:৩১ এএম, ২৪ মে ২০২০

বগুড়া জেলা শহরের চাষি বাজারের একটি মাছের আড়তের ১১জন কর্মচারীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় শনিবার একদিনে সর্বোচ্চ ২৫জন সংক্রমিত হলেন। গত দেড় মাসে ১৬৮জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হলো।


আক্রান্তদের মধ্যে ১৬জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেলেও একজনের মৃত্যু হয়েছে।

নতুন শনাক্ত হওয়া ২৫জনের বেশির ভাগই আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসে স্থানীয়ভাবে সংক্রমিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সদরের ১২, শাজাহানপুরের ৫, শেরপুরের ৩, গাবতলীর ২ এবং কাহালু, দুপচাঁচিয়া ও সোনাতলা উপজেলার ১জন করে রয়েছেন।

বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন বলেন, শনিবার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ল্যাবরেটরিতে বগুড়ার ১৬৩জনের নমুনা পরীক্ষা হয়। এর মধ্যে ২৫জনের প্রতিবেদন ‘পজিটিভ’ এসেছে। একই দিন জয়পুরহাটের ২৪ নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে চারজনের পজিটিভ এসেছে। সিরাজগঞ্জ থেকে আসা একটি নমুনা ‘নেগেটিভ’ হয়েছে।

ডেপুটি সিভিল সার্জন জানান, গত বৃহস্পতিবার জেলা শহরের ঠনঠনিয়া হাঁড়িপাড়া এলাকার ৪৮ বছর বয়সী এক ব্যক্তির করোনা শনাক্ত হয়। তিনি চাষি বাজারে সতীশ মৎস্য আড়তের কর্মচারী। পরে এই আড়তের ১৩জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়। এর মধ্যে ১১জনের করোনা শনাক্ত হয়। তারা সবাই অন্যের সংস্পর্শে এসে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।

চাষি বাজারের কয়েকজন আড়তদার বলেন, চাষি বাজারের প্রতিদিন ভোরে কয়েক হাজার ক্রেতা-বিক্রেতার ভিড় হয়। উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে এখানে মাছ বিক্রি করতে আসেন চাষি ও ব্যবসায়ীরা। করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরুর পরও এখানে সামাজিক দূরত্ব মেনে বেচাবিক্রি করা সম্ভব হচ্ছিল না। এ কারণে বাজার বন্ধ রাখার অনুমতি চেয়ে আড়তদার ও ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু প্রশাসন বাজার বন্ধে ব্যবস্থা নেয়নি। খোলা জায়গায় বাজার সরিয়েও নিতেও তারা কোনো উদ্যোগ নেয়নি।

যোগাযোগ করা হলে বগুড়া জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ বলেন, চাষি বাজার বন্ধ করলে মাছের সরবরাহে ঘাটতি হবে। এ কারণে বাজার বন্ধ করা সম্ভব হয়নি।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, মাছের আড়তের ১১জন ছাড়া শহরের জহুরুলনগর এলাকার এক ব্যক্তির করোনা শনাক্ত হয়েছে। তিনি শহরের একটি বিপণিবিতান থেকে সংক্রমিত হয়েছেন। শাজাহানপুরের মাঝিড়ায় ঢাকাফেরত এক দম্পতিসহ পাঁচজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শেরপুরের শাহপাড়ার এক দম্পতি এবং একজন পুলিশ সদস্য করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। তারা ঢাকা ফেরত। গাবতলীর দুজন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। এ ছাড়া দুপচাঁচিয়ার তালোড়ায় ঢাকাফেরত একজন, সোনাতলা সদরের একজন ও কাহালুর নারহট্ট এলাকার একজন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। এরআগে গত শুক্রবার এ জেলায় ২৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে সংরক্ষিত আসনের সাবেক সংসদ সদস্য কামরুন্নাহার পুতুল মারা যান।


আরও পড়ুন