তরুণীর সাড়ে ৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

Online Desk Aminul Online Desk Aminul
প্রকাশিত: ০৭:৩৬ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০২১

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীতে ভয়ঙ্কর এক ফেসবুক প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার নাম এম ওয়াদুদ জিয়া জুয়েল (৩০)। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনা বিভাগে বিবিএ এবং এমবিএ করা এই যুবকের বাড়ি দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার বাঘাডুবি ভবানীপুর গ্রামে। ফেসবুকে ভূয়া আইডি খুলে এক তরুণীর সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে সাড়ে সাত লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে।
ভুক্তভোগী ওই তরুণীর বাড়ি রাজশাহী নগরের কাটাখালী থানা এলাকায়। তার পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার সকাল ৯টার দিকে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) একটি দল নগরীর বোয়ালিয়া থানার মকবুল হালদার মোড় এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। পরে এ নিয়ে নিজের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন আরএমপি কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক।
তিনি জানান, ২০১৯ সালে আমিনুল ইসলাম নামের একটি ভূয়া ফেসবুক আইডি দিয়ে ওই তরুণীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন জুয়েল। ম্যাসেঞ্জারে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠলেও কখনও তাদের দেখা হয়নি। কিছুদিন পরে জুয়েল আরো একটি ভূয়া ফেসবুক আইডি খুলে নিজেকে আমিনুলের ঘনিষ্ঠ বন্ধু পরিচয় দিয়ে ওই তরুণীর সঙ্গে কথা বলতে শুরু করেন। এরপর বন্ধুর বিয়ের প্রস্তাবের কথা বলে তরুণীর বাসায় যান। তখন নিজের ল্যাপটপ হারানোর অজুহাত দেখিয়ে তরুণীর মায়ের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকার চেক নেন।
এরপর জুয়েল আরও একটি ফেসবুক আইডি খুলে ওই তরুণীকে জানান, তার প্রেমিক আমিনুল ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি। চিকিৎসার জন্য অনেক টাকা ব্যয় হচ্ছে। তখন হাতিয়ে নেন তিন লাখ টাকা। টাকা দেওয়ার পর ওই তরুণী ও তার পরিবারের সদস্যরা আমিনুলের সাথে দেখা করার জন্য ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হলে জুয়েল সিমাকে জানান, তাদের যাওয়ার দরকার নেই। আমিনুল মারা গেছেন। তারা এখন লাশ নিয়ে আমিনুলের গ্রামের বাড়ি যাচ্ছেন।
এর কিছুদিন পরে প্রতারক জুয়েল আরো একটি ভুয়া আইডি খুলে আমিনুলের বোন পরিচয় দিয়ে ওই তরুণীর সাথে যোগাযোগ করেন। এবার ওই তরুণীকে প্রলোভন দেখান একটি চাকরি দেওয়ার। আর এ জন্য দরকার সাত লাখ টাকা। জুয়েল আরও জানান, আমিনুলের চিকিৎসার জন্য যে তিন লাখ টাকা ওই তরুণী দিয়েছিলেন, সেটি তারা দিচ্ছেন। বাকি চার লাখ টাকা দিলে তার চাকরিটা হবে। ওই তরুণীর পরিবার আবারও ফাদে পা দেন। সরল বিশ্বাসে দিয়ে দেন আরও চার লাখ টাকা। এবার সবগুলো ফেসবুক আইডি বন্ধ করে দেন জুয়েল। এরপর ভুক্তভোগীর পরিবার আরএমপি কমিশনারের কাছে গিয়ে ঘটনা খুলে বলেন। এরপরই তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হলো।
পুলিশ কমিশনার জানান, প্রতারক জুয়েল একাই বিভিন্ন চরিত্রে ওই তরুণীর সঙ্গে ফেসবুকে অভিনয় করে হাতিয়ে নিয়েছেন সাড়ে সাত লাখ টাকা। তিনি এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, তার আরও নয়টি ভূয়া ফেসবুক আইডি আছে। ওই তরুণীর সঙ্গে প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেওয়া টাকা দিয়ে গ্রামে জমি কিনেছেন, গরুর খামার করেছেন। এ ব্যাপারে তার বিরুদ্ধে রাজশাহীর কাটাখালী থানায় একটি মামলা করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশ কমিশনার।


আরও পড়ুন