নিউইয়র্কে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০১:০১ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

তিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম বার্ষিক অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক পৌঁছেছেন। এদিকে তার যুক্তরাষ্ট্র সফরের পক্ষে-বিপক্ষে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দিনভর আওয়ামী লীগ-বিএনপির কর্মসূচি চলার সময় নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটস রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।


এ সময় দফায় দফায় হামলা, পাল্টা হামলা, ধাক্কা-ধাক্কি আর কিল-ঘুষির ঘটনা ঘটেছে।
প্রবাসী বাংলাদেশিরা জানান, স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ স্ট্রিট ও ৩৭ অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থকদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ ৭৩ স্ট্রিটে একটি অস্থায়ী কার্যালয়ে স্থাপন করলে অদূরে ৩৭ অ্যাভিনিউতে একটি অস্থায়ী কার্যালয়ে স্থাপন করে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি। কিন্তু আওয়ামী লীগের সমর্থকরা বিএনপির অফিস স্থাপনে বাধা দিলে শুরু হয় তুমুল মারামারি।

দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘসময় চলতে থাকে হাতাহাতি ও ধ্বস্তাধস্তি। এ সময় উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে স্থানীয় ১১৫ প্রিসিঙ্কটের পুলিশ দুই পক্ষের মাঝে অবস্থান নেয়। প্রায় এক ঘণ্টা স্থায়ী হয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থকদের উত্তেজনা। পরে পুলিশ দুই পক্ষকে এলাকা ত্যাগে বাধ্য করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এদিকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি ও ধ্বস্তাধস্তি দেখে জ্যাকসন হাইটস এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর লোকেরা বুঝে উঠতে পারছিলেন না সেখানে কী ঘটছে। এমন অপ্রীতিকর ঘটনায় এলাকার বাসিন্দারা ভয়ে পুলিশকে ফোন করেন।

জ্যাকসন হাইটসের বাসিন্দা স্যামুয়েল স্টিফেন জানান, প্রতিবছর সেপ্টেম্বর মাসে ৭৩ স্ট্রিটের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। তার মতে, এখানে বাংলাদেশিরা মারামারিতে লিপ্ত হয়, যা কাম্য নয়।

অপরদিকে প্রবাসী বাংলাদেশিরা বলেছেন, এমন কাণ্ডে কারোরই লাভ হয়নি। শুধু শুধু প্রবাসে দেশের ভাবমর্যাদা ভুলণ্ঠিত হয়েছে।