করোনা নয়, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার বিষয়টি রাজনৈতিক : রিজভী

DhakaNANDI DhakaNANDI
প্রকাশিত: ০৭:১০ পিএম, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হলেও এখনও বিশ্ববিদ্যালয় না খোলার পেছনে সরকারের ভয় কাজ করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। 

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার বিষয়টি করোনা মহামারি নয়, সম্পূর্ণ রাজনৈতিক। আসলে এক ধরনের ভীতি, এক ধরনের শঙ্কা থেকে সরকার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে রেখেছে। কখন কী হয়ে যায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললে পরে কোথা থেকে কোন আন্দোলনের ঢেউ ওঠে- সে কারণে আপনি নজরদারি, সিসিটিভি এগুলো করেছেন। 

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় রাজশাহী ইউনিভার্সিটি ন্যাশনালিস্ট এক্স-স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের (রুনেসা) উদ্যোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক নিশতাক আহমেদ রাখীর স্মরণে এক আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলে এসব কথা বলেন রিজভী। 

করোনা মহামারির এই সময়ে বিশাল বহর নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতিসংঘ অধিবেশনে যাওয়া নিয়েও সমালোচনা করেন এই বিএনপি নেতা। প্রধানমন্ত্রী কেন ১৪১ জন সফরসঙ্গী নিয়ে হেলসিংকি হয়ে নিউ ইয়র্কে গেলেন- তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি। 

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে রিজভী বলেন, দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে দেশের যে সঙ্কট, আজকে রোহিঙ্গাদের নিজ বাসভূমিতে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য যে উদ্যোগ থাকা দরকার ছিল, যে কূটনৈতিক তৎপরতা থাকার দরকার ছিল- আপনি সেটা দেখাতে পারেননি। আপনি চারিদিক থেকে ব্যর্থ। 

সঞ্চয়পত্রের সুদহার কমানো প্রসঙ্গে রুহুল কবির রিজভী বলেন, এর মাধ্যমে মধ্যবিত্ত, নিম্ন-মধ্যবিত্ত ও নির্দিষ্ট আয়ের মানুষকে আরো চাপে রাখলো সরকার। অর্থমন্ত্রী সঞ্চয়পত্রের সুদহার কমিয়ে দিয়েছেন। এর মানে হলো গরিবরা মরুক। তাদের দিকে কোনো নজর নেই। 

সংগঠনের সভাপতি বাহাউদ্দিন বাহারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মল্লিক মো. মোকাম্মেল কবীরের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির আবদুল খালেক, রমেশ দত্ত, আমিনুল ইসলাম, মৎস্যজীবী দলের আবদুর রহিম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সাবেক নেতা মাহবুবুর রহমান ফরহাদ, আনোয়ারুল ইসলাম আনু, রফিকুল ইসলাম মন্টু, মতিউর রহমান মতি, নুরুজ্জামান তপন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে ছাত্রদলের সাবেক নেতা মেহবুব মাসুম শান্ত, বর্তমান যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুব মিয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের রাজু আহমেদসহ বিভিন্ন পর্যায়ের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।


আরও পড়ুন