স্বেচ্ছাসেবক দল : টিমের তত্ত্বাবধানেই জেলা কমিটি পুনর্গঠন

DhakaNANDI DhakaNANDI
প্রকাশিত: ০৮:৪০ পিএম, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের বিভাগীয় সাংগঠনিক টিম তৃণমূল পুনর্গঠনের পাশাপাশি সাংগঠনিক জেলা কমিটি পুনর্গঠনেও কাজ করবে। উপজেলা-থানা-পৌর কমিটির পুনর্গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে টিমের তত্ত্বাবধানেই মেয়াদোত্তীর্ণ জেলা ও মহানগর কমিটি পুনর্গঠিত হবে। তবে যেসব জেলা-মহানগর কমিটি বর্তমানে সাংগঠনিকভাবে নিষ্ক্রিয় অথবা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে সমন্বয়হীনতা বিরাজ করছে-এমন কমিটি এখনই পুনর্গঠনে কাজ করবে সংশ্লিষ্ট টিম। সেখানে আহ্বায়ক কমিটির প্রস্তাবনা তৈরি করে কেন্দ্রে জমা দেবেন টিম প্রধানরা। 

গত বৃহস্পতিবার (০২ সেপ্টেম্বর) স্বেচ্ছাসেবক দলের বিভাগীয় সাংগঠনিক টিম প্রধানদের সাথে বিএনপির হাইকমান্ডের ভার্চুয়ালি বৈঠকে তাদেরকে এই দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। ১২টি বিভাগীয় সাংগঠনিক টিমের মধ্যে সেদিন ঢাকা, খুলনা, ময়মনসিংহ, বরিশাল ও কুমিল্লা-এই ৫টি সাংগঠনিক টিমপ্রধানদের সাথে বৈঠক হয়। তবে সেই বৈঠকে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন না। 

জানা যায়, বৈঠকে টিম প্রধানরা সংশ্লিষ্ট বিভাগের সাংগঠনিক পুনর্গঠনের অগ্রগতি ও প্রতিবন্ধকতাসমূহ তুলে ধরেন। একইসঙ্গে চলতি সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই সাংগঠনিক পুনর্গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার প্রতিশ্রুতি দেন তারা। চলতি সপ্তাহেই বাকি টিমপ্রধানদের সাথে বিএনপির হাইকমান্ডের বৈঠক হবে বলে জানা গেছে। 

২০১৬ সালের ২৭ অক্টোবর শফিউল বারী বাবুকে সভাপতি ও আবদুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েলকে সাধারণ সম্পাদক করে স্বেচ্ছাসেবক দলের সাত সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এরপর গত বছরের ২৮ জুলাই বাবু করোনায় মৃত্যুবরণ করলে সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়। পরবর্তীতে মেয়াদ শেষ হওয়ার পর গত বছরের সেপ্টেম্বরে দুই দফায় স্বেচ্ছাসেবক দলের ১৮৬ সদস্যের আংশিক কেন্দ্রীয় কমিটি অনুমোদন করে বিএনপি। এরপর উপজেলা-থানা-পৌর শাখার কমিটি গঠন তথা তৃণমূলে সংগঠনকে আরও শক্তিশালী ও গতিশীল করার লক্ষ্যে ওই বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর সহ-সভাপতির নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক দলের ১২টি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়। 

স্বেচ্ছাসেবক দল সূত্রে জানা গেছে, এসব টিমের তত্ত্বাবধানে সারাদেশের ৯৪০টি ইউনিটের (উপজেলা-থানা-পৌর) মধ্যে ইতোমধ্যে ৪৩০টির মতো শাখায় আহ্বায়ক কমিটি গঠিত হয়েছে। এছাড়া সংগঠনটির কেন্দ্রীয় দফতরে ৩০টির মতো কমিটি জমা রয়েছে। আর দেড়শ’টির মতো ইউনিটে কর্মিসভা হলেও দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা এখনও কমিটি জমা দেননি। 

অন্যদিকে স্বেচ্ছাসেবক দলের সারাদেশে ৮১টি সাংগঠনিক জেলার প্রায় সবক’টিতেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি রয়েছে। এর মধ্যে ১২/১৩টিতে রয়েছে আহ্বায়ক কমিটি। একমাত্র কক্সবাজারে আংশিক কমিটি রয়েছে, তবে সেটার কার্যক্রম অনেকটাই নিষ্ক্রিয়। ২০১৮ সালের একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে গঠিত হওয়ায় অধিকাংশ জেলা কমিটিই এখন মেয়াদোত্তীর্ণ।  

স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারা জানান, মোস্তাফিজুর রহমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হওয়ার পর থেকেই কমিটির কার্যক্রমে গতি আসে। তার আন্তরিকতা-সদিচ্ছা ও সাংগঠনিক দক্ষতার কারণে বিগত ৫/৬ মাসের মধ্যে ৩০টির মতো জেলার আংশিক কমিটি পূর্ণাঙ্গ হয়েছে। একইসঙ্গে টিম প্রধানরা ইউনিট কমিটি দফতরে জমা দেয়ার পর যাচাই-বাছাই শেষে সেগুলোও দ্রুত আলোর মুখ দেখছে।


 


আরও পড়ুন