উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

রংপুরে বাড়ি ভাড়া ও জমির দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে

প্রকাশিত: জানুয়ারী ০৬, ২০২২, ০৮:২৭ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ০৬, ২০২২, ০৮:২৭ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

রংপুর জেলা প্রতিনিধি: রংপুর বিভাগ ও সিটি করপোরেশন বাস্তবায়ন হওয়ার পর থেকে মহানগরীতে বাড়ি ভাড়া ও জমির দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে। বাড়ি ভাড়া নিয়ন্ত্রণে কঠোর আইন অধ্যাদেশ থাকলেও বাড়িওয়ালারা তা মানছেন না।
জানা গেছে, ২০১২ সালে রংপুর পৌরসভা সিটি করপোরেশনে উন্নতি হওয়ার পরপরই বাড়িওয়ালারা নিজেদের ইচ্ছেমত বাড়ি ভাড়া বাড়ায়। আগে নগরীতে একটি রুম ৮শ’ থেকে এক হাজার টাকা ভাড়া ছিল। বর্তমানে তা ২ হাজার থেকে আড়াই হাজার টাকা। আগে ৩ রুমের বাড়ি ভাড়া ছিল ৪ থেকে ৫ হাজার টাকা তা এখন প্রকার ভেদে ১০ হাজার থেকে ২৫ হাজার পর্যন্ত হয়েছে।
ভাড়াটিয়ারা জানান, এক বছর থেকে ৫ বছর পর্যন্ত একই ভাড়া বাড়িতে বসবাস করছেন প্রায় ৪০ ভাগ পরিবার। ৫ বছর থেকে ১০ বছর পর্যন্ত বসবাস করছেন শতকরা ২৫ ভাগ পরিবার। রংপুরে বিভিন্ন জেলা-উপজেলার পাশাপাশি দেশের অন্যান্য জেলার নানা শ্রেণীর মানুষ চাকরির সুবাদে এই নগরীতে থাকে। এছাড়া এখানে নিম্ন আয়ের মানুষগুলো কাজের জন্য এ নগরীতে ছুটে আসে। থাকতে হয় ভাড়া বাড়িতে।
ভাড়াটিয়াদের অভিযোগ, সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ বাড়ি ভাড়া বিষয়ে আইনের যথাযথ প্রয়োগ করলে কেউ সহজে ভাড়া বাড়াতে পারতো না। এছাড়া গত এক দশকে বাড়ি করার মত জমির দাম বেড়েছে এলাকা ভেদে ১০ গুণের বেশি। নগরীর পশ্চিম দিকে মেডিকেল মোড়, ধাপ এলাকায় জমির দাম সব চেয়ে বেশি। ধাপ এলাকায় কোটি টাকা দিলেও এক শতাংশ জমি পাওয়া যায় না। নগরীর অন্যান্য এলাকা ১০ বছর আগে যে জমির সর্বোচ্চ দাম ছিল দেড় লাখ টাকা থেকে দুই লাখ শতাংশ। তা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫ থেকে ২০ লাখ টাকায়।
সংস্কৃতিকর্মী ও সংগঠক নজরুল মৃধা বলেন, বাড়ি ভাড়া নিয়ন্ত্রণ আইন ১৯৯১ এবং বাড়ি ভাড়া নিয়ন্ত্রণ অধ্যাদেশ ১৯৬৪ নামে দুইটি আইন রয়েছে। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ সজাগ থাকলে কোন বাড়িওয়ালা যখন তখন ভাড়া বাড়াতে পারবেন না।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়