১২ বছর ধরে চিকিৎসা দিচ্ছিলেন ভুয়া ডাক্তার

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৭:০৬ পিএম, ২৮ জুন ২০২০

অনলাইন ডেস্কঃ  বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালেও থেমে নেই মানুষের জালিয়াতি, অনিয়ম। এবার খোদ এ জালিয়াতি ও অনিয়ম পাওয়া গেল রাজধানীর সুপরিচিত মতিঝিল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে। এ সময় এক ভুয়া চিকিৎসকসহ চারজনকে জেল-জরিমানা দেয় পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

আজ বেলা ১২টা থেকে চার ঘণ্টা ধরে হাসপাতালটিতে অভিযান চালায় র‌্যাব-৩ এর একটি দল। দলে থাকা র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু জানান, ভুয়া চিকিৎসকসহ বেশ কিছু অভিযোগ ছিল হাসপাতালটির বিরুদ্ধে। ভুয়া চিকিৎসক মিজানুর রহমানকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালটির ফার্মেসিতে অনুমোদনহীন ওষুধ রাখায় শফিউল ইসলাম ও আব্দুল জলিল নামের দুজনের প্রত্যেককে পাঁচ লাখ টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালের অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারভাইজার মো. হাসিনুর রহমানকে সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, মতিঝিল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের মিজানুর রহমান নামে একজন ডাক্তার ১২ বছর ধরে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন। তিনি ইউনানির সাময়িক অনুমোদন নিয়েই দিয়ে আসছিলেন অ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা। কিন্তু ইউনানি নীতিমালা অনুযায়ী এটা করা যায় না। এছাড়াও তিনি প্রেসকিপশনে নিজেকে ডাক্তার হিসেবে উল্লেখ করে আসছিলেন। শুধু তাই নয় হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, এমফিল ড্রিগ্রির বিষয়ও তুলে ধরছিলেন।


আরও পড়ুন