টিকার দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় চট্টগ্রামের লক্ষাধিক মানুষ

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ১১:৩৮ এএম, ২২ জুলাই ২০২১


অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজের করোনা টিকার অপেক্ষায় রয়েছেন চট্টগ্রামের লক্ষাধিক মানুষ। তিন মাসের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও টিকা দিতে না পারায় আতঙ্কিত টিকা গ্রহীতারা। তিন মাসের বেশি সময় পর দ্বিতীয় ডোজের টিকা দিলেও কোনো সমস্যা হবে না বলে জানান বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। যুক্তরাষ্ট্র থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা এলে আগামী মাসের শুরু থেকে দ্বিতীয় ডোজের টিকাদান শুরু হবে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি।
অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকার অপেক্ষায় চট্টগ্রামের লক্ষাধিক মানুষ

চট্টগ্রামে চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রথম করোনার টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম দফায় জেলার ১৪ উপজেলা ও নগরীর ১১টি কেন্দ্রের মাধ্যমে অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজের টিকা দেওয়া হয় ৪ লাখ ৫৩ হাজার ৭৬০ জনকে। দুই মাস হিসেবে ৮ এপ্রিল থেকে শুরু হয় দ্বিতীয় ডোজের টিকাদান কার্যক্রম। নগরী ও জেলায় দ্বিতীয় ডোজের টিকা গ্রহণ করেন ৩ লাখ ৪৪ হাজার ৪৪৬ জন। পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় ১ লাখ ৯ হাজার ৩১৪ জন দ্বিতীয় ডোজের টিকা গ্রহণ করতে পারেননি। করোনা সংক্রমণ মারাত্মকভাবে বেড়ে যাওয়ায় দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেওয়া নিয়ে শঙ্কিত লক্ষাধিক মানুষ।

প্রথম ডোজ গ্রহণের তিন থেকে চার মাস পর দ্বিতীয় ডোজ নিলেও কোনো সমস্যা হবে না বলে জানান জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট আব্দুর রব।
আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে দ্বিতীয় ডোজের টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি।
এর আগে ৭ জুলাই টিকার বৈশ্বিক উদ্যোগ কোভ্যাক্সের আওতায় চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে কিংবা আগস্টের শুরুতে বাংলাদেশ অক্সফোর্ড–অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৩৫ লাখ টিকা পেতে যাচ্ছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। ফলে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার অভাবে যে ১৫ লাখ লোক দ্বিতীয় ডোজের টিকা পাননি, সেই সংকট কেটে যেতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের চুক্তি অনুযায়ী অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা সরবরাহ করতে ব্যর্থ হওয়ায় এ অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।
 


আরও পড়ুন