শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে উত্তাল রাজপথ, যানজটে ভোগান্তি

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০৩:৪১ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০২১

শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজধানীর রাজপথ। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সকাল থেকে রাজধানীর গুলিস্তান, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, শান্তিনগর, উত্তরা ও ফার্মগেটসহ বিভিন্ন স্থানে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছেন। এসময় ব্যস্ত সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

শিক্ষার্থীদের দাবি—নিরাপদ সড়কের নিশ্চয়তা, গণপরিবহনে হাফ ভাড়া কার্যকর ও সড়ক দুর্ঘটনায় সহপাঠী নিহতের ঘটনায় জড়িতদের বিচার নিশ্চিত করা হোক।


বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) সকাল থেকেই বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের স্লোগানে মুখর হয়ে উঠে রাজধানীর রাজপথ। রাস্তা দখল করে তারা অবরোধ করায় রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় প্রচণ্ড যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে সাধারণ মানুষ গন্তব্যে পৌঁছাতে সীমাহীন ভোগান্তির মধ্যে পড়েছেন।

এসময় বিভিন্ন সড়কে যানবাহন আটকে গাড়ির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র রয়েছে কি না তা দেখতে চান শিক্ষার্থীরা। এসময় গুলিস্তান এলাকায় একজন পুলিশ সদস্যের মোটরসাইকেলের কাগজপত্র না থাকায় কৈফিয়ত চান তারা। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সেখানে ছুটে এলে ‘আইন সবার জন্য সমান’ উল্লেখ করে পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা করার দাবি জানান।

সরেজমিনে দেখা গেছে, নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা সকালে মতিঝিল এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে গুলিস্তান যান। এসময় তারা জিরো পয়েন্টের কাছে সড়ক অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেন। তারা গণপরিবহনে হাফ ভাড়া নেওয়ার সরকারি ঘোষণা ও প্রজ্ঞাপন জারির দাবি জানান। পাশাপাশি অদক্ষ চালকের গাড়ির নিচে চাপা পড়ে সহপাঠী নিহতের ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানানো হয়। দাবি আদায়ে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন তারা।


এদিকে, রাজধানীর সায়েন্স ল্যাব এলাকায় বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও মুন্সী আবদুর রউফ স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা হাফ ভাড়া কার্যকর ও সড়ক দুর্ঘটনায় সহপাঠী নিহতের ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেন। তারা দুপুর ১টা থেকে পৌনে ২টা পর্যন্ত ওই সড়ক অবরোধ করে রাখেন।

রাজধানীর শান্তিনগরে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ-সমাবেশ করেন। একই সময়ে সিদ্ধেশ্বরী ও উত্তরায় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেন। ফার্মগেটে একই দাবিতে হলিক্রস ও সরকারি বিজ্ঞান কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করেন।

জানা গেছে, কয়েকদিন ধরে গণপরিবহনে হাফ ভাড়ার দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছিলেন। তার মধ্যেই হাফ ভাড়া দেওয়া নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে বদরুন্নেসা কলেজের এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের হুমকি দেয় বাসের হেলপার। এসময় তাকে অপমান-অপদস্ত করে। এর প্রতিবাদে বকশিবাজার মোড়ে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ করে বদরুন্নেসার ছাত্রীরা। তারা জড়িতকে গ্রেফতারের দাবিতে আলটিমেটাম দেয়। পরে পুলিশ ওই বাসের চালক ও সহযোগীকে গ্রেফতার করে।

অন্যদিকে, শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকরে আদালতে রিট আবেদন করা হয়েছে। শনিবার (২৭ নভেম্বর) রিটের শুনানির দিন ধার্য রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলন নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও চরম বিপাকে পড়েছেন। তারা অবরোধকারীদের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে যেতে পারছেন না। তাদের বুঝিয়ে-শুনিয়ে আন্দোলন স্থগিত করছেন।

তবে হাফ ভাড়া সম্পর্কে সরকারিভাবে সুস্পষ্ট নির্দেশনা না আসায় সংকট বাড়তে পারে বলে মনে করছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা।


আরও পড়ুন