জলোচ্ছ্বাসের শঙ্কা কেটেছে, বহাল তিন নম্বর সংকেত

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০২:৫৮ পিএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

উত্তর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপটি আরও উত্তর-পশ্চিমে সরে গেছে। ফলে দেশের উপকূলে জলোচ্ছ্বাসের শঙ্কা কেটেছে।


তবে সাগর এখনও বিক্ষুব্ধ থাকায় বহাল রাখা হয়েছে তিন নম্বর সতর্কতা সংকেত।
আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টায় উড়িষ্যা-ঝাড়খণ্ড ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে। ফলে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ একেএম রুহুল কুদ্দুছ জানিয়েছেন, নিম্নচাপটি আরও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়েছে এবং ধীরে ধীরে দুর্বল হচ্ছে। মৌসুমী বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, গভীর নিম্নচাপের কেন্দ্রস্থল ও বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে উত্তর পশ্চিম দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে প্রবল অবস্থায় রয়েছে।

এই অবস্থায় বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হতে পারে। তবে ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়ার সঙ্গে বজ্রসহ মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হবে। সারাদেশে দিনের এবং রাতের তাপমাত্রা (১-২) ডিগ্রি সে. হ্রাস পেতে পারে। ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণপূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় এ সময় বাতাসের গতিবেগ থাকবে (১০-১৫) কি.মি., যা অস্থায়ীভাবে দমকা হওয়াযসহ গতিবেগ ২৫ কি.মি. হতে পারে।  

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে। বর্ধিত ৫ (পাঁচ) দিনের আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে।


আরও পড়ুন