এক বছরেই সেতু যখন মরণফাঁদ

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৪, ২০২১, ১২:২১ দুপুর
আপডেট: ডিসেম্বর ২৪, ২০২১, ১২:২১ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন


নেত্রকোনার সীমান্ত উপজেলা কলমাকান্দার শ্যামপুর সেতু এখন মরণফাঁদ। নির্মাণের এক বছর না ঘুরতেই সেতুর দুই প্রান্তের পাড় ভেঙে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন ১৫টি গ্রামের অন্তত ৪০ হাজার মানুষ।

নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের কারণে এমন দশা অভিযোগ স্থানীয়দের। যদিও এলজিইডির প্রকৌশলীর দাবি নিম্নমান নয় বরং পানির স্রোতেই সেতুর এমন দশা।

কৈলাটি ইউনিয়নের শ্যামপুর বাজার এলাকার বুগাই শাখা নদীর উপর ১১১ মিটার দৈর্ঘের ১৮ ফুট প্রশস্ত এই সেতুটি চলাচলের জন্য উন্মুক্ত হয় বছর খানেক আগে। কিন্তু বছর ঘুরতেই ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত শ্যামপুর সেতুটির এমন দশা। সেতুটির পূর্বদিকের শেষপ্রান্তে বালু সরে গিয়ে বিশাল বিশাল গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ভেঙেছে একপাশের গার্ডার ও সেতুরক্ষা বাঁধও। এতে দীর্ঘদিন যাবত ভোগান্তি পোহাচ্ছেন স্থানীয়রা। ঝুঁকি নিয়েই মাটি ফেলে লাল নিশান টানিয়ে একপাশ দিয়ে চলাচল করছে এলাকাবাসী।

এদিকে, সেতু পরিদর্শনে এসে উপ সহকারী প্রকৌশলীর দাবি কাজ ভালো হয়েছে। পানির স্রোতের কারণেই এপ্রোচ সড়ক ভেঙেছে।

নেত্রকোনা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ সহকারী প্রকৌশলী মো. ইমরান হোসন বলেন, সেতুর মূল কাঠামোতে কোনো সমস্যা হয়নি। পাহাড়ি ঢলের কারণে সেতুর দুই পাশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে বলেছি। তারা এটি মেরামত করে দেবে।

শিগগরিই সেতুটি মেরামতের কাজ শুরু হবে বলে আশ্বাস দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়