মুক্তার গয়নার যত্ন-আত্তি

প্রকাশিত: মে ১৫, ২০২২, ০২:১০ দুপুর
আপডেট: মে ১৫, ২০২২, ০২:১০ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক: বিকেলের সোনালি আলোয় মুক্তার গয়নায় সাজতেন জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়ির মেয়েরা। নারীদের সাজগোজে আভিজাত্য প্রকাশে মুক্তার গয়না ব্যবহারের প্রচলন এই উপমহাদেশে বহু পুরোনো। শাড়ি, সালোয়ার কামিজ কিংবা ওয়েস্টার্ন পোশাকের সঙ্গে সহজেই মানিয়ে যায় বিভিন্ন ডিজাইনের মুক্তার গয়না। 

হীরা, সোনা কিংবা রুপার গয়নার সঙ্গে মুক্তার গয়না আজ সমানভাবে সমাদৃত। বাজারে বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান ধাতব গয়নার দাম বাড়াতে আজকাল অনেকেই ঝুঁকছেন মুক্তার গয়নার প্রতি। মুক্তার গয়না যেমন সাধ্যের মধ্যে তেমনই আভিজাত্যপূর্ণও। 

মুক্তার রং: কবির উপমায় সাদা দাঁতকে মুক্তার সঙ্গে তুলনা করা হলেও মুক্তা কিন্তু গোলাপি আভাযুক্ত। তবে বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা অনেক ধরনের মুক্তা পাওয়া যায়। সেগুলোর রং রুপালি, হাল্কা বেগুনি ও সবুজাভাব হয়ে থাকে। তবে, প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া মুক্তার দাম যেমন বেশি, রংও তেমনি উজ্জ্বল। 

মুক্তার গয়নার দাম: মুক্তার গয়নার দাম নির্ভর করে মুক্তার আকার আর রংয়ের ওপর। মুক্তার কানের টপের দাম ১০০ থেকে শুরু করে কয়েক হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। মালার ডিজাইন আর মানের ওপর নির্ভর করে দাম হতে পারে ৮০০ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত। তবে, মুক্তার সঙ্গে অন্যান্য পাথর যোগ করে ডিজাইন করে নিলে দামে তারতম্য আসবে। চাষের মুক্তার চেয়ে প্রাকৃতিকভাবে পাওয়ার মুক্তার দাম তুলনামূলকভাবে বেশি হয়ে থাকে। 

কোথায় পাবেন মুক্তার গয়না: রাজধানীর গুলশান-২, গাউসিয়া, বসুন্ধরা শপিং কমপ্লেক্সে আছে বেশ কিছু মুক্তার গয়নার দোকান। যেখানে আপনি পাবেন নানান ডিজাইনের আর গুণগত মানের মুক্তার গয়না। তাছাড়া বেশকিছু জনপ্রিয় অনলাইন পেজেও পেতে পারেন এক্সক্লুসিভ ডিজাইনের মুক্তার গয়না। 

আপনি যদি গয়নাপ্রেমি হয়ে থাকেন, নিশ্চয়ই মুক্তার গয়না আপনার সংগ্রহে রয়েছে!

কীভাবে যত্ন নেবেন মুক্তার গয়নার: চলুন আজ তাহলে জেনে নেই মুক্তার গয়নার যত্ন-আত্তি। কেন না সঠিক যত্নই পারে আপনার গয়নার ঔজ্জ্বল্য ধরে রাখতে। মুক্তার গয়না প্রতিবার পরার পর কটন-প্যাড অথবা পাতলা সুতি কাপড় দিয়ে মুছে রাখুন। এতে করে সারাদিনের ঘাম আর ময়লা উঠে আসবে। 

যেহেতু প্রকৃতিতে পাওয়া মুক্তাগুলো এবড়ো-থেবড়ো হয়, তাই এতে অনেক সময় ময়লা জমতে পারে। ময়লা জমলে কুসুম-গরম পানিতে সামান্য শ্যাম্পু মিশিয়ে হালকা হাতে ঘষে পরিষ্কার করে নিতে পারেন। তবে কোনোভাবেই জোরে ঘষা যাবে না। ভেজা অবস্থায় কোনোভাবেই গয়না রাখা যাবে না। এতে মুক্তা ভঙ্গুর হয়ে যেতে পারে। 

মুক্তার গয়না কাঠের কিংবা কাপড়ের বাক্সেই রাখা ভালো। এতে একদিকে যেমন মুক্তার আর্দ্রতা বজায় থাকে। অন্যদিকে তেমনি গয়নার কাঠামোও ঠিক থাকে। মুক্তার গয়না কখনই ঝুলিয়ে রাখা উচিত নয়। অন্যান্য গয়নার থেকে একটু আলাদা রাখায় শ্রেয়। তা না হলে অন্য গয়নার আঁচড় লাগতে পারে। 

আপনার মুক্তার গয়নাগুলো যতই পরবেন, ততই ভালো থাকবে। যদি গয়নাগুলো পরার সুযোগ না আসে, তাহলে অন্তত বছরে দু-একবার আলো-বাতাসে রাখুন। 

মুক্তার গয়নায় সরাসরি পারফিউম ব্যবহার করা ঠিক না। তা না হলে এটি রাসায়নিক বিক্রিয়া করে নিজের বর্ণ হারাতে পারে। 

মুক্তার গয়না অযথা টানাটানি না করাই ভালো। এতে সুতো ছিঁড়ে যেতে পারে। তা ছাড়া অনেকদিন ব্যবহারের পর কারিগর বাড়ি থেকে সুতা পরিবর্তন করে অথবা নতুন ডিজাইনে তৈরি করে পরতে পারেন। 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়