আমাকে ফাঁসানো হয়েছে: আদালতে শারমিন জাহান

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৫:১০ পিএম, ২৫ জুলাই ২০২০

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নকল এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের অভিযোগে গ্রেফতার অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী শারমিন জাহান বিচারককে বলেছেন, ‘আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। আমি যদি নকল মাস্ক দিয়ে থাকি তাহলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাকে সেটা ফেরত দেবেন। কিন্তু সেটা না করে আমার নামে মামলা দিলেন।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নকল এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের অভিযোগে শুক্রবার রাতে শাহবাগ এলাকা থেকে শারমিনকে গ্রেফতার করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। আজ শনিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মইনুল ইসলামের আদালত শারমিন জাহানের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এদিন রিমান্ড শুনানির মাঝে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে শাহবাগ থানার মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন করে তাকে আদালতে হাজির করেন। এরপর শুনানি শুরু হয়। শুনানির মাঝে আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা শারমিন জাহান বিচারকের কাছে কিছু বলার অনুমতি চান।

এরপর বিচারক তাকে অনুমতি দিলে শারমিন জাহান বলেন, আমি প্রথম দুই বার মাস্ক দিলাম। তখন হাসপাতাল  কর্তৃপক্ষ মাস্কের মান  নিয়ে কিছুই বললেন না। কিন্তু আবার যখন তৃতীয় বার মাস্ক দিলাম তখন বলা হলো যে নকল মাস্ক।

তিনি আরও বলেন, যদি নকল মাস্ক আমি দিয়ে থাকি তাহলে সেটা আমাকে রিটার্ন দেবে। কিন্তু সেটা না করে আমার নামে মামলা দেওয়া হল। মূলত আমাকে ফাঁসানোর জন্য এটা করা হয়েছে।

শুনানি শেষে আদালত তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বেলা পৌনে ২টার দিকে তাকে আদালত থেকে নিয়ে যায় পুলিশ।

সাবেক এ ছাত্রলীগ নেত্রীর বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার মামলা করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মামলায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, এ মাস্কের কারণে কোভিড-১৯ সম্মুখযোদ্ধাদের জীবন মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়েছে।