১৮ বছরের আগে বাল্যবিয়ে নয়!

স্মৃতি সঞ্চায়িতা অর্থি

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৩, ২০২২, ০৫:২৪ বিকাল
আপডেট: নভেম্বর ২৩, ২০২২, ০৮:০৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

আইন-আদালত ডেস্ক: একটি মেয়ের চোখে থাকে হাজারো স্বপ্ন। পাখির মতো ডানা মেলতে চায় সে। উড়াল দিতে চায় তার স্বপ্নের আকাশে। তবে আকাশে উড়াল দেবার আগেই তাদের ডানাগুলো ভেঙে দেয়া হয় বাল্যবিয়ের মাধ্যমে। আকাশে উড়তে থাকা পাখিগুলোকে যেন এক রকম পায়ে শিকল বেঁধে খাঁচায় বন্দি করে ফেলা হয়।

সরকারের হাজারো পদক্ষেপের পরেও যেন কমছেই না বাল্যবিয়ে। 

বাল্যবিবাহের ওপর এক প্রতিবেদনে জাতিসংঘের জনসংখ্যা তহবিল (ইউএনএফপিএ) জানিয়েছেন,বিগত বছরের তুলনায় ২০২১ সালেই বাল্যবিয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে ১০% ।

২০১০ সালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলের ৬৯ শতাংশ নারীর ১৮ বছর বয়স হওয়ার আগেই বিয়ে হয়ে যাচ্ছে।
অর্থ্যাৎ, এই তথ্যচিত্র দেখলেই বোঝা যায়, প্রতি বছরই ঝোড়ে পরে কত মেয়ের স¦প্ন। 

বাল্যবিয়ের একটি অন্যতম কারন দারিদ্রতা,নিরাপত্তাহীনতা।এজন্য গ্রামাঞ্চলে বেশির ভাগ মেয়েরই ১৮ বছরের আগেই বিয়ে হয়ে যায়। 

১৮ বছরের কম বয়সি মেয়েদের বিয়ে দেয়া হলে  বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এ তা অপরাধ হিসাবে গন্য হবে। এই ক্ষেত্রে, কোন প্রাপ্ত বয়স্ক পুরুষ বাল্য বিয়ে করলে তার ২ বছরের কারাদন্ড ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক পুরুষ বাল্য বিয়ে করলে তার ১ মাসের কারাদন্ড সহ অর্থদন্ডের বিধান রয়েছে। 

তবে দুঃখের বিষয় হলো এই আইনের বিধান থাকলেও প্রয়োগ তেমন দেখা যায় না। কেননা বেশীর ভাগ সময়ে গোপনে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

আবার, গ্রামগুলোতে কাজী ভূয়া নিবন্ধন পত্র দিয়ে মেয়ের বয়স বাড়িয়ে বিয়ে দেয়। এটিও কিন্তু আইনের চোখে অপরাধ। 
এজন্য সরকার নানা কর্মসূচী গ্রহন করলেও বন্ধ করা যাচ্ছে না বাল্যবিয়ে।বিশেষ করে চর অঞ্চলগুলোতে মেয়েদের ১২/১৩ বছর বয়সেই বিয়ে দেয়া হয়।

আর এই বাল্যবিয়ের ফলে বাড়ছে মা ও শিশুর মৃত্যু। বাড়ছে যৌতুকের জন্য নির্যাতন। এমনকি বিবাহ বিচ্ছেদের মতো ঘটনাও।এক জরিপ প্রতিবেদনে উঠে আসে বাল্যবিয়ের কারনে যৌন নির্যাতনের স্বীকার হয় ৮.২% ও  স্বামীর নির্যাতনের স্বীকার হয় ৪% নারী।

অথচ এই মেয়েগুলোই আমাদের দেশকে এগিয়ে নিতে পারতো। উজ্জ্বল নক্ষত্রের মোত জ¦লতে পারতো সফলতার আকাশে। 
তবে সামাজিকভাবে এগিয়ে আসলে ও সচেতনতা গড়ে তুললে এই ছোট নক্ষত্রগুলো হয়তো আর ঝড়ে পরবে না।

 

 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়