সম্পদের মামলায় পাপিয়া দম্পতির বিচার শুরু

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০৩:২০ পিএম, ৩০ নভেম্বর ২০২১

যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত আলোচিত নেত্রী শামিমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদের মামলায় চার্জ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছেন আদালত।  

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩ এর বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইন এ আদেশ দেন।


 
এদিন রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের আর্জি জানানো হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবী মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক আসামিদের কাছে দোষী না নির্দোষ তা জানতে চান। জবাবে দুই আসামি নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায় বিচার চান।  

এরপর আদালত অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের আদেশ দেন। একইসঙ্গে এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ২২ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন আদালত।   

গত ৬ অক্টোবর আসামিদের বিরুদ্ধে দুদকের দেওয়া চার্জশিট আমলে গ্রহণ করেন ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ। ওইদিন মামলাটি পরবর্তী বিচারের জন্য বিশেষ জজ আদালত-৩ এ বদলির আদেশ দেন তিনি।

৬ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত বছরের ৪ আগস্ট দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়-১ এ সংস্থার উপ-পরিচালক শাহীন আরা মমতাজ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।  

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, গত বছরের ১২ অক্টোবর থেকে চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ওয়েস্টিন হোটেলের ২৫টি রুমে অবস্থান করে রুম-নাইট, রেস্টুরেন্ট (খাবার), রেস্টুরেন্ট (মদ), স্পা, লন্ড্রি, মিনি বার ফুড, মিনি বার বাবদ মোট তিন কোটি ২৩ লাখ ২৪ হাজার ৭৬১ টাকার বিল ক্যাশে পরিশোধ করেন পাপিয়া। ওই সময়ে ওয়েস্টিন হোটেলে থাকা অবস্থায় প্রায় ৪০ লাখ টাকার শপিং করেন। যার বৈধ উৎস দেখাতে ব্যর্থ হন তিনি।  

এভাবে মোট ৬ কোটি ২৪ লাখ ১৮ হাজার ৭১৮ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ পাওয়া যায়, যা আয়ের উৎসের স্বপক্ষে কোনো দালিলিক প্রমাণ না পাওয়ায় পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমনের বিরুদ্ধে দুদক আইনে মামলাটি দায়ের করা হয়।

চলতি বছরের মার্চ মাসে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন শাহীন আরা মমতাজ।