দুর্নীতি মামলায় সেই তুফানের জামিনে হাইকোর্টের রুল

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০২:২৩ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২১

দুর্নীতি দমন কমিশননের করা মামলায় কিশোরীকে ধর্ষণ এবং কিশোরী ও তার মাকে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার ও বগুড়ার বহিষ্কৃত বহুল আলোচিত শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকারকে কেন জামিন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।


আদালতে এদিন আসামিপক্ষে শুনানি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম সোহেল। রাষ্ট্রপক্ষে জামিনের বিরোধিতা করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মাসুদ রুমি ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মেহেদী হাসান মিলন।

এর আগে এক বেঞ্চে জামিনের রুল বিচারাধীন থাকার পরও অপর এক আদালতে জামিন আবেদন করায় বগুড়ার বহুল আলোচিত বহিষ্কৃত শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকার ছয় মাস দেশের কোনো আদালতে জামিন চাইতে পারবেন না বলে আদেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে জ্ঞাত আয়বহির্ভূতভাবে সম্পদ অর্জনের মামলায় তার জামিন বিষয়ে রুল খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। গত ১ এপ্রিল হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

ওইদিন আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার সাজ্জাদ হোসাইন। আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহ আলম সরকার।


গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর জ্ঞাতআয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় বগুড়ার বহুল আলোচিত বহিষ্কৃত শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকারকে কেন জামিন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

এই রুল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় একই বেঞ্চে গত ৯ মার্চ জামিন চেয়ে নতুন করে আবেদন করেন তুফান সরকার। বিষয়টি আদালতের নজরে এলে তুফান সরকার ছয় মাস কোনো আদালতে জামিন চাইতে পারবেন না বলে আদেশ দেন হাইকোর্ট। এর পরে আজ জামিন আবেদনের শুনানি নিয়ে রুল জারি করেন আদালত।

তুফান সরকারের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর বগুড়া সদর থানায় মামলা করে দুদক। মামলায় বলা হয়, জ্ঞাতআয়বহির্ভূত এক কোটি ৫৯ লাখ ৫৮ হাজার ৮৮৫ টাকা অর্জন করেছেন তুফান সরকার, যা তার আয়কর রিটার্নে দেখিয়েছেন। বাস্তবে আসামি তুফান সরকারের আয়ের কোনো বৈধ উৎস ছিল না।

বগুড়ায় মা ও মেয়েকে নির্যাতনের পর মায়ের মাথা ন্যাড়া করার অভিযোগের মামলায় ২০১৭ সালের ২৯ জুলাই থেকে তিনি কারাবন্দি। এরই মধ্যে এ মামলায় হাইকোর্ট তার জামিনের আবেদন খারিজ করেছেন। এর বাইরে তার বিরুদ্ধে দুদকে জ্ঞাতআয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা রয়েছে।