মানবদেহে ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুত ভারতীয় কোভিড-১৯র ভ্যাকসিন

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০১:৪৬ পিএম, ৩০ জুন ২০২০

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ  জুলাই মাসে ভারতজুড়ে শুরু হতে যাচ্ছে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়াল।

ভারতে তৈরি প্রথম করোনার টিকা হিসেবে কোভ্যাকসিনের প্রথম ও দ্বিতীয় পর্বের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে সম্মতি দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ, সিএমআর-এর সঙ্গে যৌথ প্রচেষ্টায় এই ভ্যাকসিন তৈরি করেছে হায়দ্রাবাদের ভারত বায়োটেক।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, কোভ্যাকসিন একটি নিষ্ক্রিয় ভ্যাকসিন যা সংক্রামক সার্স কোভ-২ ভাইরাসের স্ট্রেন থেকে তৈরি। আগামী জুলাই থেকে সারাদেশে এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে। সরকারি উদ্যোগে তৈরি হচ্ছে এই ভ্যাকসিন।

প্রথম দফায় মানবদেহে প্রয়োগ করে দেখা হবে এটি কেমন আচরণ করছে বা কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ঘটছে কিনা। সেক্ষেত্রে ওষুধের উপাদানে পরিবর্তন আনা হতে পারে। এরপর দ্বিতীয় দফায় ভ্যাকসিনটি কী পরিমাণে মানবদেহে ব্যবহার করতে হবে তা নির্ধারণ করা হবে।

সবমিলিয়ে মাস চার থেকে পাঁচ মাস সময় লাগতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এর আগে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে যে, দেশে ৩০টি গ্রুপ ভ্যাকসিন উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে ওষুধ প্রস্তুতকারীরা নোবেল করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন তৈরির জন্য চেষ্টা করছেন। এটি এমন এক ভাইরাস যা আগে কখনও মানুষের মধ্যে শনাক্ত করা যায়নি। ফলত ভ্যাকসিন তৈরির কাজটি আরও শক্ত হয়ে উঠছে।

তবে করোনার ভ্যাকসিন তৈরির দৌড়ে ভারত মূল ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করা হচ্ছে এবং দেশটির বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ওষুধ তৈরির কাজ করছে।

একই ধরণের প্রচেষ্টা ট্রায়ালের বিভিন্ন পর্যায়ে বিভিন্ন ওষুধ নিয়ে সারা বিশ্ব জুড়ে চলছে। গত সপ্তাহে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছিল যে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন সম্ভবত তালিকায় সবার আগে ছিল। ব্রিটিশ সংস্থাটি ইতিমধ্যেই অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের তৈরি ওষুধের বৃহত্তর তথা মধ্য-পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করেছে।