ভিক্ষা করেই কোটিপতি, আছে ফ্ল্যাট-ব্যাংক ব্যালেন্স

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৩, ২০২২, ০৮:৪১ রাত
আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২২, ১২:২৩ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বহুজাতিক সংস্থায় কাজ করেন না। যুক্ত নেই ব্যবসায়ও। তারপরেও তারা উপার্জন করেন বিপুল পরিমাণ অর্থ। দিনের শেষে মোটা অংকের টাকা আসে হাতে। আর তা কেবল ভিক্ষা করেই। কখনো প্ল্যাটফর্মে, কখনো বা রেস্তোরাঁর সামনে হাত পেতে দাঁড়িয়ে। ভিক্ষা করেই আজ ধনী ভারতের কয়েকজন ভিখারি। আসুন জেনে নেওয়া যাক ভারতের কয়েকজন ধনী ভিখারি সম্পর্কে। প্রথমেই যার নাম আসবে, তিনি ভরত জৈন।

দেশটির সংবাদমাধ্যমের মতে, ভারতের সবচেয়ে ধনী ভিখারি সম্ভবত তিনিই। থাকেন মুম্বাইয়ে। প্রতি মাসে ৯৪ হাজার টাকা উপার্জন করেন ভরত। মুম্বাইয়ে দুটি ফ্ল্যাট আছে তার, যার মোট মূল্য এক কোটি ৮৮ লাখ টাকার বেশি। ভরতের পরেই আছেন সম্ভাজি কালে। মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা তিনি। ভিক্ষা করেই জমিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। মহারাষ্ট্রের সোলাপুর শহরে দুটি বাড়ি রয়েছে সম্ভাজির। এ ছাড়াও জমানো টাকায় কিনেছেন ফ্ল্যাট এবং জমি।

শোনা যায়, তিনি মাঝে মধ্যেই বিপুল পরিমাণ টাকা বিনিয়োগ করে থাকেন। পাটনার অশোক সিনেমা হলের আশপাশে খুঁজলে এখনও দেখা মিলতে পারে সরবতিয়া দেবীর। অশোক সিনেমা হলের পেছনেই তার বাড়ি। ভিক্ষা করে প্রতি মাসে ৬০ হাজার টাকার বেশি উপার্জন করেন সরবতিয়া।

৪৫ হাজার টাকা বার্ষিক প্রিমিয়ামও দেন। মুম্বাইতে ফ্ল্যাট আছে বেশ কয়েকজন ভিখারির যে ভিক্ষুকের মধ্যে উল্লেখযোগ্য তিনি বুর্জুচন্দ্র আজাদ। মুম্বাইয়ে ভিক্ষা করে লাখ লাখ টাকা উপার্জন করেছিলেন। ২০১৯ সালে ট্রেন দুর্ঘটনায় মারা গেলে জানা যায়, বাড়িতে এক লাখ ৮৮ হাজার টাকা এবং ব্যাংকে প্রায় সাড়ে ১২ লাখ টাকা জমা রেখেছিলেন বুর্জু। পাটনা রেলস্টেশনের প্ল্যাটফর্মে ভিক্ষা করেন পাপ্পু কুমার। এক দুর্ঘটনায় পা কাটা পড়ে যাওয়ার পর ভিক্ষা করতে শুরু করেন তিনি। সূত্রের দাবি, পাপ্পুর কাছে এক কোটি ২৫ লাখ টাকার সম্পত্তি রয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়