বিয়ের জন্য প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্নায় প্রেমিক

প্রকাশিত: মে ১০, ২০২২, ০৩:১৮ দুপুর
আপডেট: মে ১০, ২০২২, ০৩:১৮ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

ছয় বছরের সম্পর্ক। তারপরেও বিয়ের প্রস্তাবে রাজি নয় প্রেমিকার পরিবার। প্রেমিকাকে বিয়ে করার দাবি নিয়ে ধর্নায় বসলেন প্রেমিক! যুবক জানিয়েছেন, বিয়ে না দেয়া পর্যন্ত তিনি ধর্না থেকে উঠবেন না। প্রেমিকের নাম সঞ্জিত রায়। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের ধূপগুড়ি শহরে। 

তাদের ছয় বছরের প্রেম। মাঝখানে প্রেমের সম্পর্কে ভাটা পড়েছিল। আর এরই মধ্যে প্রেমিকার অন্য জায়গায় বিয়ের দেখাশোনা চলছে। খবর পাওয়া মাত্রই প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন প্রেমিক সঞ্জিত রায়।

ভারতের ধূপগুড়ি পুরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা ঠান্ডু রায়ের বাড়ির সামনে অনশনে বসেছেন সঞ্জিত রায় নামে এক যুবক। হাতে রয়েছে ঠান্ডুর মেয়ে লক্ষ্মীর সঙ্গে তাঁর একটি ছবি। সঞ্জিতের দাবি, প্রায় ছয় বছর ধরে লক্ষ্মীর সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক। এখনও নিয়মিত কথাবার্তা হয় তাঁদের। তবে লক্ষ্মীর অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার চিন্তাভাবনা করছে তাঁর পরিবার। এর পরেই লক্ষ্মী তাঁকে বাড়ি থেকে নিয়ে যেতে বলেন। পাত্রের পরিবারের তরফে লক্ষ্মীর সঙ্গে বিয়ের প্রস্তাব দিলেও তা প্রত্যাখ্যান করা হয় বলেও দাবি। এর পরেই লক্ষ্মীদের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসার সিদ্ধান্ত নেন বলে জানিয়েছেন সঞ্জিত।

লক্ষ্মীদের পাশের গ্রাম বারোঘরিয়া পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা সঞ্জিত সোমবার দুপুর থেকেই অনশনে বসেছেন। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামলেও অনড়। প্রবল বৃষ্টি উপেক্ষা করেই বিয়ের দাবিতে নাছোড় সঞ্জিত। সমস্যা সমাধানের জন্য ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং সঞ্জিতের গ্রামের পঞ্চায়েত সদস্যকেও নিয়ে শুরু হয়েছে বৈঠক। যদিও লক্ষ্মীর বাবা ঠান্ডুর দাবি, আমার বাড়ির সামনে আচমকাই অনশনে বসেছে এক যুবক। মেয়ের ওই যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে, সে বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। আমার বড় ছেলে ওই যুবককে চলে যেতে বললেও সে যায়নি। যদি লক্ষ্মীকে বিয়ে করতে চায়, আমার কোনো আপত্তি নেই। তবে তাঁর সঙ্গে পরিবারের কোনো সম্পর্ক থাকবে না!

 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়