মায়ের মৃত্যু সইতে না পেরে বিষপানে ২ ভাইয়ের আত্মহত্যা

প্রকাশিত: জানুয়ারী ১৪, ২০২২, ০৬:২২ বিকাল
আপডেট: জানুয়ারী ১৪, ২০২২, ০৬:২২ বিকাল
আমাদেরকে ফলো করুন

পশ্চিমবঙ্গের আসানসোলের বার্নপুরে অসুস্থ মায়ের মৃত্যু কোনোমতেই মেনে নিতে পারেননি ছেলে-মেয়েরা। সেই শোকে মায়ের মরদেহের পাশেই বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন তিন ভাই-বোন। তাদের মধ্যে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন বোন।
গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে বার্নপুরের স্টেশন রোডে পরিত্যক্ত আবাসন থেকে মরদেহ তিনটি উদ্ধার করা হয়।
জানা যাচ্ছে, ৯০ বছরের গীতা কর এবং তার দুই ছেলে জয়ন্ত কর, বিপ্লব করকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। আরেক সন্তান, ৫৭ বছরের বোন মায়া করকে বাড়ি থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাকে আসানসোল জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক। জয়ন্ত ও বিপ্লব দু’জনের বয়সই ষাটের আশপাশে। বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে সুইসাইড নোট। পাওয়া গিয়েছে কার্বলিক অ্যাসিডের বোতলও।
পুলিশের দাবি, সুইসাইড নোটে লেখা- স্বেচ্ছায় তারা মৃত্যুবরণ করেছেন। মৃত্যুর কারণ হিসেবে দায়ী করেছেন, মা ছিল তাদের অন্তপ্রাণ। তাই তিন ভাই-বোন বিয়ে করেননি। মায়ের মৃত্যুর পর নিজেরা আর বাঁচতে চান না। তাই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বড় ভাই জয়ন্ত কর বার্নপুর ইস্কো কারখানায় কাজ করতেন। তার একার আয়েই চলতো সংসার।
প্রতিবেশীদের দাবি, এদিন বেলা পর্যন্ত বাড়ির দরজা বন্ধ ছিল। তাতে সন্দেহ হওয়ায় পুলিশের কাছে খবর পাঠানো হয়। হীরাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ তিনটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসাপাতালে পাঠানো হয়। মায়া করকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন মায়াদেবী। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, খাবারের সঙ্গে কার্বলিক অ্যাসিড মাখিয়ে খেয়ে সবাই আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়