লোহিত সাগরে আরব আমিরাতের জাহাজ হাইজ্যাক!

প্রকাশিত: জানুয়ারী ০৪, ২০২২, ১১:২৯ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ০৪, ২০২২, ১১:২৯ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা লোহিত সাগরে আরব আমিরাতের পতাকাবাহী একটি কার্গো জাহাজ হাইজ্যাক করেছে। সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট দাবি করেছে, রাওয়াবি নামের জাহাজটি হাসপাতালের জিনিসপত্র বহনের কাজে নিয়োজিত ছিল। যদিও ইরান সমর্থিত গোষ্ঠীটির দাবি, জাহাজটি অন্তর্ঘাতমূলক কাজের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছিল।
সৌদি আরবের বিগ্রেডিয়ার জেনারেল তুর্কি আল মালিকি জানিয়েছেন, রাওয়াবি নামের জাহাজটি ইয়েমেনের সোকোত্রা দ্বীপ থেকে সৌদির জিজান বন্দরে যাচ্ছিল। কিন্তু সোমবার মধ্যরাতে কোনো কারণ ছাড়াই সেটি হুথি বিদ্রোহীরা আক্রমণ ও অপহরণ করে।
তুর্কি আল মালিকি আরো জানান, সোকোত্রা দ্বীপে সেনাবাহিনীর জন্য একটি হাসপাতালের জিনিসপত্র নিয়ে গিয়েছিল রাওয়াবি। সেখান থেকে জাহাজটি মিশন শেষ করে ফিরছিল।
তুর্কি আল মালিকি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে হুথি বিদ্রোহীদের জাহাজটি ছেড়ে দিতে হবে। না হলে সৌদিজোট সব ধরনের শক্তি দিয়ে জাহাজটি উদ্ধার করতে মাঠে নামবে।
তবে হুথি বিদ্রোহীদের মুখপাত্র বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি দাবি করেছেন, জাহাজটি সামরিক জিনিসপত্র বহন করছিল, যা ইয়েমেন ও সাধারণ মানুষদের জন্য হুমকিস্বরূপ
হুথি বিদ্রোহী ও সৌদি জোট গত সাত বছর যাবত যুদ্ধ করছে।
এর আগে ২০১৬ সালে লোহিত সাগরে সুইফট-১ নামে আরব আমিরাতের পতাকাবাহী একটি জাহাজ আটক করেছিল হুথিরা। তখনও সৌদি জোট দাবি করেছিল, জাহাজটি হাসপাতালের জিনিসপত্র বহন করছিল।
গত ২৫ ডিসেম্বর থেকে দুই পক্ষের মধ্যে ফের নতুন করে সংঘাতের তীব্রতা বেড়েছে। ওইদিন সৌদি আরবে মিসাইল ছোঁড়ে হুথিরা। মিসাইলের আঘাতে দেশটির দুইজন নাগরিক নিহত হয়। এর জবাবে বড় ধরনের সামরিক অভিযান শুরু করে সামরিক জোট।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়