মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে অনশনরত ফিলিস্তিনি কারাবন্দি

প্রকাশিত: জানুয়ারী ০৩, ২০২২, ১০:১৮ রাত
আপডেট: জানুয়ারী ০৩, ২০২২, ১০:১৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

কোনো কারণ ও বিচার ছাড়াই ইসরাইলের কারাগারে বন্দি আছেন ফিলিস্তিনের নাগরিক হাসিম আবু হাওয়াস। এর প্রতিবাদে আমরণ অনশন করছেন ইসলামিক জিহাদ মুভমেন্টের এ সদস্য। এখন পর্যন্ত তিনি ১৪০ দিন ধরে মুখে কিছু নেননি। আর এত লম্বা সময় ধরে অনশনে থাকার কারণে তার স্বাস্থ্যের অবস্থা বেশ খারাপ হয়ে গেছে।
বর্তমানে তিনি আছেন মৃত্যুসজ্জায়। আর কিছুদিন এমনটি চলতে থাকলে তিনি মারা যেতে পারেন। এ আশঙ্কায় তাকে মুক্তি দেওয়া দাবি জানিয়েছে ফিলিস্তিনের জনগণ। তার মুক্তির দাবিতে তারা মানববন্ধনসহ বিভিন্ন আন্দোলন করছে।
পাঁচ সন্তানের জনক হাসিম আবু হাওয়াসকে গ্রেফতার করা হয় গত বছর। তাকে গ্রেফতার করা হয় অ্যাডমিনিসট্রিটিভ ডিটেনশন এর অধীনে। ফলে তাকে কোনো কারণ ছাড়া ও কোনো প্রকার বিচার না করে যতদিন ইচ্ছা ততদিন তারা আটক করে রাখতে পারবে। এমনকি তিনি জানতেও পারবেন না তাকে ঠিক কি কারণে আটকে রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগে বিচার করা হবে, এটিও জানতে পারবেন না। আর এমন কালো নিয়মের প্রতিবাদে গত আগস্ট মাস থেকে আবু হাওয়াস অনশন শুরু করেন।
হাসিম আবু হাওয়াসের স্ত্রী গণমাধ্যম এএফপিকে রোববার জানান, আবু হাওয়াসের অবস্থা বেশ খারাপ। গত শনিবার থেকে তিনি কথাও বলতে পারছেন না। এমনকি তার আশে পাশে কী ঘটছে এ বিষয়েও তিনি বুঝতে পারছেন না। তিনি আরও বলেন, আবু হাওয়াস যদিও এখন তার অনশন ভাঙেন। তাতেও ভবিষ্যতে আর স্বাভাবিক জীবন-যাপন করতে পারবেন না তিনি। তারা এখন তাই ইসরাইলের সুপ্রিম কোর্টে তার দ্রুত মুক্তির দাবিতে আবেদন করবেন।
ইসরাইলের নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, হাসিম আবু হাওয়াস ইসরাইলের বিরুদ্ধে কাজ করেছেন। ফলে তাকে আটক রাখা হয়েছে।
ফিলিস্তিনের মানবাধিকার সংঘটন আল-হক জানিয়েছে, হাসিম আবু হাওয়াসের মতো প্রায় ৫৫০ জনকে এই অ্যাডমিনিসট্রিটিভি ডিটেনশনের অধীনে আটক করে রাখা হয়েছে। যা মানবাধিকারের পুরোপুরি লঙ্ঘন।
আবু হাওয়াস যে ইসলামিক জিহাদ মুভমেন্টের সদস্য সে দলটি জানিয়েছে, আবু হাওয়াসের এমন খারাপ পরিস্থিতির জন্য দায়ী ইসরাইল। এখন তার যদি কিছু হয় তাহলে তারা এর চরম প্রতিশোধ নেবে। সূত্র: দি নিউ আরব।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়