অমরত্ব লাভের আশায় স্বামীকে জীবন্ত কবর দিলেন স্ত্রী!

Online Desk Aminul Online Desk Aminul
প্রকাশিত: ০৮:০৯ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০২১

জীবনে অমরত্ব আসবে এমন উদ্ভট বিশ্বাসে স্বঘোষিত এক ভবিষ্যৎ বক্তা তাকে সমাধিস্থ করতে বলেছিলেন স্ত্রীকে। তার কথা মতো জীবিত অবস্থাতেই স্বামীকে মাটির গর্তে পুঁতে দিয়েছেন ভারতের তামিলনাড়ুর পেরামবক্কমের এক নারী। খবর এবিপি আনন্দের।
খবরে বলা হয়, পেরামবক্কমের কালাইনগর করুণানিধি নগরের বাসিন্দা নাগরাজ ছিলেন স্বঘোষিত ভবিষ্যৎ বক্তা। নাগরাজ দাবি করেছিলেন যে, তিনি সৃষ্টিকর্তার সঙ্গে কথা বলেছেন এবং সম্প্রতি রাজ্যের কয়েকটি মন্দিরে পূজা দেয়ার পর তিনি দৈব আশীর্বাদ পেয়েছেন। নিজের বাড়ির উঠানে একটি মন্দিরও গড়েন তিনি। জীবনের ভবিষ্যৎ জানতে তার মন্দিরে আসতে লোকজনকে আমন্ত্রণ জানান নাগরাজ।
এরইমধ্যে গত ১৬ নভেম্বর বুকে ব্যথা অনুভব করেন নাগরাজ। স্ত্রীকে ডেকে নাগরাজ বলেন, তিনি খুব শীঘ্রই মারা যেতে পারেন। তার অল্প জীবন থাকতে থাকতে জীবিত অবস্থায় তাকে মাটিতে সমাধিতে দিতে স্ত্রীকে অনুরোধ করেন নাগরাজ। এমন করলে তিনি অমর হয়ে যাবেন বলেও স্ত্রীকে জানান নাগরাজ। স্বামীর অনুরোধ মেনে নেন স্ত্রী লক্ষ্মী। গত ১৭ নভেম্বর নাগরাজ অচেতন হয়ে পড়েন। অচেতন অবস্থাতেই তাকে গর্তে বসিয়ে মাটি চাপা দেন নাগরাজের স্ত্রী।
খবর আরও বলা হয়, গত শুক্রবার কর্মস্থল থেকে বাড়িতে ফেরেন নাগরাজ ও লক্ষ্মীর মেয়ে থামিঝারাসি। পেশায় তিনি একজন প্রযুক্তিবিদ। বাড়িতে ফিরে বাবাকে দেখতে না পেয়ে অবাক হয়ে যান তিনি। বাবা নিখোঁজ। কিন্তু মা নীরব। এই পরিস্থিতিতে মাকে প্রশ্ন করতে শুরু করেন থামিঝারাসি। শেষপর্যন্ত লক্ষ্মী স্বীকার করে নেন যে, তিনি তার স্বামীকে সমাধি দিয়ে দিয়েছেন। এরপর আর দেরি করেননি ওই দম্পতির মেয়ে। তিনি সঙ্গে সঙ্গে পেরামবক্কম থানার পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ নাগরাজের দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।
পুলিশ জানিয়েছে, সমাধির সময় নাগরাজ জীবিত ছিলেন, না মারা গিয়েছিলেন, তা একমাত্র ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পরই জানা যেতে পারে।