চীনের ক্ষেপণাস্ত্রে মার্কিন বিস্ময়

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৫:২৩ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২১

পরমাণু অস্ত্র-সক্ষমতার হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে চীন।গেল আগস্টের এই পরীক্ষার মাধ্যমে দেশটি এমন সক্ষমতা দেখিয়েছে, যাতে মার্কিন গোয়েন্দারাও অবাক হয়ে গেছেন। কারণ চীনের এই সফলতার তাদের চিন্তারও বাইরে ছিল।

পাঁচটি অজ্ঞাত সূত্রের বরাতে ফিন্যানসিয়াল টাইমস এমন খবর দিয়েছে। পত্রিকাটির শনিবারের (১৬ অক্টোবর) প্রতিবেদনে বলা হয়, হাইপারসনিক গ্লাইড ভিহিকল (এইচজিভি) বহনকারী একটি রকেপ উৎক্ষেপণ করেছে চীন। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় এইচজিভি ব্যবহার করা হয়।

মহাকাশের নিম্ন-কক্ষপথ দিয়ে এটি উড্ডয়ন করেছে। লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার আগে ভূমণ্ডলকে প্রদক্ষিণ করেছে এই ক্ষেপণাস্ত্র। খবরে বলা হয়েছে, হাইপারসনিক অস্ত্রে বিস্ময়কর অগ্রগতি অর্জন করেছে চীন। এই পরীক্ষা তা-ই বলে দিচ্ছে। মার্কিন কর্মকর্তারা চীনের সক্ষমতা নিয়ে যে ধারণা পোষণ করতেন, বেইজিংয়ের অর্জন তার চেয়ে অনেক বেশি।এ নিয়ে জানতে চাইলে চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে কোনো সাড়া মেলেনি।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র উদ্ভাবন করেছে। গেল মাসে উত্তর কোরিয়া বলছে, তারা নতুন উদ্ভাবিত একটি হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছেন।

২০১৯ সালের সামরিক মহড়ায় অত্যাধুনিক অস্ত্রের প্রদর্শন করেছিল চীন। যার মধ্যে ডিএফ-১৭ নামের হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে।

উচ্চগতির খাড়া ট্র্যাজেকটরিতে ফিরে আসার আগে মহাশূন্যের দিকে ধাবিত হয় দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র। তার তুলনায় হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র মোকাবিলা কঠিন। কারণ এই অস্ত্র কম উচ্চতা দিয়ে তার লক্ষ্যবস্তুর দিকে ধাবিত হয়। কিন্তু গতি থাকে শব্দের চেয়েও পাঁচগুণ বেশি।