ক্ষমতা গ্রহণের পর তালেবানের ওপর প্রথম ভয়ংকর হামলা

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০৭:১২ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল এবং নানগাহার প্রদেশে বেশ কয়েকটি শক্তিশালী বিস্ফোরণে দুই তালেবান কর্মকর্তা নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে চীনের সংবাদ মাধ্যম সিজিটিএন।
ক্ষমতা গ্রহণের পর তালেবানের ওপর প্রথম ভয়ংকর হামলা

 আফগানিস্থানের সংবাদ মাধ্যম টলো নিউজের বরাত দিয়ে তারা জানায়, শনিবার স্থানীয় সময় সকালে কাবুলে প্রথম বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। শক্তিশালী এই বিস্ফোরণের ঘটনায় বেশ কয়েজন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

 
রাশিয়ার সংবাদ মাধ্যম স্পুটনিক নিউজ জানায়,পশ্চিম কাবুলের দাস্ত-ই-বারচি জেলায় প্রথম বিস্ফোরণ ঘটে। এতে একাধিক বেসামরিক আফগান আহত হন।
 
এদিকে চীনের সংবাদ মাধ্যম সিজিটিএন জানায় শনিবার নানগাহর প্রদেশের রাজধানী জালালাবাদ শহরেও একাধিক বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে। তালেবান কর্মকর্তাদের বহনকারী গাড়িতে বিস্ফোরণে কমপক্ষে ২ জন নিহত হন। আহত হয়েছেন আরও ২০ জন।
 
জালালাবাদ প্রশাসন জানিয়েছে, স্থলমাইনের আঘাতে দুই তালেবান কর্মকর্তা ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান। এতে একাধিক বেসামরিক আফগান আহত হন। দ্বিতীয় বিস্ফোরণ একই জেলায় হলেও কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। 
 
এক তালেবান মুখপাত্র জানান, বোমা বিস্ফোরণে নারী ও শিশুও নিহত হয়েছে। জড়িতদের আটক করতে অভিযানে নেমেছে তালেবান প্রশাসনের নিরাপত্তা বাহিনী। 
 
দ্বিতীয় বিস্ফোরণ একই জেলায় হলেও কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, গত এক মাস আগে আফগানিস্তানের ক্ষমতা গ্রহণের পর এটাই তালেবানের ওপর প্রথম হামলা।

 
 জালালাবাদে আইএস এর ভয়ংকর খোরাসান গ্রুপ খুবই সক্রিয়। যারা তালেবান ক্ষমতায় আসার পর কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ আত্মঘাতী বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে। ওই হামলায়  ১৩ মার্কিন সেনাসহ ২০০ জনের বেশি নিহত হয়।
 
এর আগে বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের খইর খানেহ এলাকায় রকেট হামলা খবর জানায় দেশটির সংবাদ মাধ্যম টলো নিউজ। ছামতালা বিদ্যুৎকেন্দ্রে এই রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সম্পর্কেও কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। কী উদ্দেশ্যে এই আক্রমণ, তাও স্পষ্ট নয়।
 
কোনও গোষ্ঠী এখনও পর্যন্ত এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে  আইএস-কে (ইসলামিক স্টেট-খোরাসান) এই হামলায় জড়িত থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।