আস্থা হারাচ্ছে মডার্না, তৃতীয় ডোজ প্রয়োগের দাবি

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৩:০০ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

মডার্না টিকার করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ক্ষমতা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কমে যাচ্ছে। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিজেই জানিয়েছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। খবর রয়টার্সের।
এ পরিস্থিতি বুস্টার ডোজ (তৃতীয় ডোজ) প্রয়োগের তাগিদ দিয়েছে কোম্পানিটি।


মডার্না প্রেসিডেন্ট স্টিফেন হোজ এক কনফারেন্স কলে বলেছেন, টিকার কার্যকারিতা কমে যাওয়া একটি অনুমানমাত্র। টিকার সুরক্ষা ক্ষমতা কমে যাওয়ার কারণে (যুক্তরাষ্ট্রে) আনুমানিক ছয় লাখ অতিরিক্ত সংক্রমণ দেখা যাবে।

তবে কত শতাংশ মানুষ গুরুতর আক্রান্ত হতে পারেন, তা স্পষ্ট করেননি তিনি। বলেছেন, কিছু লোককে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া লাগতে পারে।যদিও সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি গবেষণা তথ্যের সঙ্গে মডার্নার এ তথ্য সম্পূর্ণ বিপরীত।আগের গবেষণাগুলোতে বলা হয়েছিল, ফাইজার-বায়োএনটেকের তুলনায় মডার্নার টিকার সুরক্ষা ও কার্যকারিতা বেশি স্থায়ী।

তবে উভয় টিকার তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে করোনায় গুরুতর অসুস্থতা প্রতিরোধে ইতিবাচক কার্যকারিতা দেখা গেছে। মডার্না বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জানিয়েছে, ১৩ মাস আগে যারা টিকা নেওয়া নিয়েছেন তাদের তুলনায় আট মাস আগে টিকাগ্রহীতাদের মধ্যে সংক্রমণের হার কম দেখা গেছে। প্রতিবেদনটি পিয়ার রিভিউয়ের অপেক্ষায় রয়েছে।

গত ১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের (এফডিএ) কাছে বুস্টার ডোজের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করে মডার্না।
হোজ বলেন, দ্বিতীয় ডোজের পর টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের শরীরে যে পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে, গবেষণায় তৃতীয় ডোজের পর তার চেয়েও বেশি তৈরি হতে দেখা গেছে। আমরা বিশ্বাস করি, মডার্নার তৃতীয় ডোজ আগামী বছরের বেশির ভাগ সময় রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা ধরে রাখবে।

স্টিফেন হোজ আরও বলেন, তাদের টিকার কার্যকারিতা ভালো। তবে এর সুরক্ষা ক্ষমতা কমে যাওয়া হতাশাজনক।
মডার্না প্রেসিডেন্ট বলেন, টিকা নেওয়ার পর প্রথম ছয় মাস এর কার্যকারিতা ঠিক আছে। কিন্তু এক বছর বা তার পর টিকার স্থিতিশীল কার্যকারিতায় ভরসা করা যাচ্ছে না।