বাবা-ছেলে মিলে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে দিল নারীর দেহ

Online Desk Online Desk
প্রকাশিত: ০১:৪১ এএম, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আবারও নৃশংস গণধর্ষণ। শুধু ধর্ষণ করেই ক্ষান্ত হননি আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন ওই নারীর শরীরে। ঘটনা ভারতের উত্তরপ্রদেশের সীতাপুরের মিশরিখ অঞ্চলে।

রিকশা চালক বাবা ও তার ছেলের বিরুদ্ধে এক নারীকে ধর্ষণ করে গায়ে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তাদেরকে আটক করেছে পুলিশ। হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ওই নির্যাতিত নারীকে। তার শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে।

সীতাপুরের পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট আরপি সিং জানান, আপৎকালীন নম্বর ১১২-তে ফোন করে তাদের কাছে খবর দেওয়া হয়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়ে নারীকে উদ্ধার করে পুলিশ। ঠিক কী হয়েছিল? ৩০ বছর বয়সী ওই নারী বাপের বাড়ি থেকে ফেরার সময় ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তির রিকশায় উঠেছিলেন। এরপরই তার উপর চড়াও হয় অভিযুক্ত। সে এবং তার ছেলে মিলে ধর্ষণ করে নারীকে। পরে তার শরীরে আগুন লাগিয়ে দেয়। পুলিশ দুই অভিযুক্তকেই আটক করেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট আরও জানান, নির্যাতিতার মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হবে। নারীর শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেলেও আপাতত তিনি বিপদমুক্ত বলে তদন্তকারী পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন। এই ঘটনায় আরও কেউ জড়িত কিনা তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনাটির বিস্তারিত বিবরণ জানতে চেষ্টা করা হচ্ছে।