করোনা মহামারির ঝুঁকিতে অন্তঃসত্ত্বা ও নবজাতক

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৫:১৬ পিএম, ০৮ মে ২০২০

নভেল করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) মহামারির সময়ে বাংলাদেশে জন্ম হবে প্রায় ২৪ লাখ শিশুর। জাতিসংঘ শিশু তহবিল ইউনিসেফের ঢাকা অফিস থেকে বৃহস্পতিবার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ইউনিসেফ সতর্ক করে বলেছে, কোভিড-১৯ এ অন্যদের চেয়ে বেশি অন্তঃসত্ত্বা মায়েদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার প্রমাণ এখনও না মিললেও দেশে তাদের গর্ভকালীন, সন্তান জন্মকালীন ও সন্তান জন্মের পরের সেবা পাওয়ার সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে। মৃত্যুঝুঁকি বেশি থাকায় অসুস্থ নবজাতকের জন্য জরুরি সেবা লাগবে।

বিশ্বে জন্ম হবে প্রায় ১১ কোটি ৬০ লাখ শিশুর। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাসের মহামারি ঘোষণার পর ৪০ সপ্তাহের মধ্যে এসব শিশুর জন্ম হওয়ার কথা জানিয়েছে ইউনিসেফ। মহামারির প্রভাবে বিশ্বে স্বাস্থ্যসেবা চাপের মুখে এবং চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ ব্যাহত হচ্ছে।

১০ মে মা দিবসের আগে করোনাকালে গর্ভবতী নারী ও নবজাতকের জন্য ঝুঁকি বাড়ছে বলেও মন্তব্য করেছে সংস্থাটি।

ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েটা ফোর বলেন, বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ মা মাতৃত্বের স্বাদ নেওয়ার স্বপ্ন বুনছেন। এমন এক বিশ্ব বাস্তবতায় পৃথিবীতে নতুন জীবন আনার তাদের জন্য প্রস্তুত হতে হবে যেখানে সংক্রমিত হওয়ার ভয়ে অন্তঃসত্ত্বারা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যেতে ভয় পাচ্ছেন বা লকডাউনের কারণে ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থা চাপের মুখে থাকায় তারা জরুরি সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ভারতে দুই কোটি এক লাখ, চীনে এক কোটি ৩৫ লাখ, নাইজেরিয়ায় ৬৪ লাখ, পাকিস্তানে ৫০ লাখ ও ইন্দোনেশিয়ায় ৪০ লাখ শিশুর জন্ম হবে। শিশু জন্মের দিক দিয়ে ষষ্ঠ অবস্থানে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশের অবস্থান নবম।

এছাড়া শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো শুরু করার জন্য সহায়তা এবং শিশুকে সুস্থ রাখতে ওষুধ, টিকা ও পুষ্টি প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে হবে।