অঘটনের রাতে রিয়াল বার্সার হার

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৩:৩১ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২০

আন্তর্জাতিক বিরতির পর মাঠে ফেরাটা খুব খারাপ হলো রিয়াল মাদ্রিদের। শক্তি-সামর্থ্যে অনেক পিছিয়ে থাকা ক্যাডিজের বিপক্ষে নিজেদের মেলে ধরতে পুরোপুরি ব্যর্থ হলো জিনেদিন জিদানের দল। দারুণ পারফরম্যান্সে অসাধারণ এক জয় পেল ১৪ বছর পর লা লিগায় ফেরা দলটি।

আলফ্রেদো দি স্তেফানো স্টেডিয়ামে শনিবার ১-০ গোলে হারে রিয়াল মাদ্রিদ। একমাত্র গোলটি করেন লোসানো। এই প্রথম স্পেনের সফলতম দলটির মাঠে জিতল ক্যাডিজ। লিগে প্রায় ১৭ মাস পর ঘরের মাঠে হারল রিয়াল। ২০১৯ সালের ১৯ মে সবশেষ হেরেছিল তারা; রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে ২-০ গোলে। লা লিগার রেকর্ড চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে নবাগত ক্যাডিজের মাঠের লড়াইটা হলো অপ্রত্যাশিত। কেবল বল পায়ে রাখায় আধিপত্য করতে দেখা গেল রিয়ালকে, আক্রমণে তারা ছিল বিবর্ণ।

দ্বিতীয় মিনিটে এগিয়েও যেতে পারত তারা। নিজেদের ডি-বক্সের মুখে বল ক্লিয়ার করতে অহেতুক বিলম্ব করছিল রিয়াল, তারই ফাঁকে বল পেয়ে আলভারো নেগ্রেদোর নেওয়া শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে জালে জড়াতে যাচ্ছিল। গোললাইনের ঠিক আগ থেকে স্লাইডে ফেরান সের্হিও রামোস।

চতুর্দশ মিনিটে থিবো কোর্তোয়ার নৈপুণ্যে আরেক দফা বেঁচে যায় রিয়াল। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার হুয়ান কালার শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ফেরান বেলজিয়ামের এই গোলরক্ষক। দুই মিনিট পরেই কাঙ্ক্ষিত গোল পেয়ে যায় কাদিস। সতীর্থের হেডে বাড়ানো বল প্রথম ছোঁয়ায় হাঁটু দিয়ে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দারুণ বুদ্ধিদীপ্ত এক টোকায় ঠিকানা খুঁজে নেন লোসানো। বল কোর্তোয়ার বাহু ছুঁয়ে জালে জড়ায়।

৩৭ মিনিটে প্রথম উল্লেখযোগ্য আক্রমণ করে রিয়াল। তবে প্রতিপক্ষকে পরীক্ষায় ফেলার মতো কিছুই করতে পারেনি তারা। দুই মিনিট পর কর্নারে রাফায়েল ভারানের হেড একটুর জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দুটি ও আগামী সপ্তাহে লিগে এল ক্লাসিকোসহ ২৩ দিনে মোট সাতটি ম্যাচ খেলতে হবে। সেই ভাবনাতেই হয়তো দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে অধিনায়ক রামোস ও মদ্রিচসহ একসঙ্গে চারটি পরিবর্তন করেন জিদান। এরপর তাদের খেলায় কিছুটা গতিও বাড়ে; তবে নিশ্চিত কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না তারা।

৬৬ মিনিটে টনি ক্রুসের ক্রস ছয় গজ বক্সের মুখে আয়ত্ত্বেই পেয়েছিলেন ভিনিসিউস জুনিয়র; কিন্তু হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। ৮১ মিনিটে সমতায় ফিরতে পারত রিয়াল; কিন্তু ভাগ্য সহায় ছিল না। ডি-বক্সের বাইরে থেকে করিম বেনজেমার শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও ক্রসবার এড়াতে পারেনি। বাকি সময়ে মরিয়া চেষ্টা চালালেও ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে পারেনি চ্যাম্পিয়নরা।

ইউরোপ সেরার মঞ্চে আগামী বুধবার শাখতার দোনেৎস্কের মুখোমুখি হবে রিয়াল। তিন দিন পর লিগে প্রতিপক্ষ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা। এর তিন দিন পর আবারও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ। গুরুত্বপূর্ণ সব ম্যাচের আগে দলের এমন সাদামাটা পারফরম্যান্স জিদানের কপালে ভাঁজ ফেলতে বাধ্য।

আরেক ম্যাচে গেটাফের মাঠে ১-০ গোলে হেরেছে বার্সেলোনা। আক্রমন-প্রতি আক্রমনে জমে উঠা ম্যাচের প্রথমার্ধে কোনো দল গোলের দেখা পায়নি। শেষ পর্যন্ত ৫৬ মিনিটে এগিয়ে যায় স্বাগতিক দল। পেনাল্টি থেকে গেটাফেকে জয়সূচক গোল এনে দেন হাইমে মাতা। এতে বার্সেলোনার কোচ হিসেবে প্রথম হারের স্বাদ পেলেন রোনাল্ড কুম্যান।


আরও পড়ুন