ভালো গানের মধ্য দিয়ে বেঁচে থাকতে চান শবনম প্রিয়াংকা

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ০১, ২০২২, ০৫:৫৬ বিকাল
আপডেট: ডিসেম্বর ০১, ২০২২, ০৫:৫৬ বিকাল
আমাদেরকে ফলো করুন

অভি মঈনুদ্দীন : শবনম প্রিয়াংকার মিষ্টি আর সুরেলা কন্ঠটা অনেকের কাছেই এরই মধ্যে ভালো লাগার হয়ে উঠেছে। যেখানে যেখানে তিনি আজ পর্যন্ত স্টেজ শো করেছেন সেখানে তার কন্ঠের এক আলাদা শ্রোতা দর্শক ভক্তও তৈরী হয়েছে। ইউটিউবে প্রকাশিত বিভিন্ন গানের মন্তব্যে এর প্রমাণ মিলে বেশি। চ্যানেল আই আয়োজিত ‘ক্ষুদে গান রাজ’ ও ‘সেরা কন্ঠ’তে যথাক্রমে ২০১১ সালে ও ২০১৩ সালে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। ক্ষুদে গান রাজ-এ সেরা ২০ পর্যন্ত এবং সেরা কন্ঠ’তে সেরা ২৫ পর্যন্ত ছিলেন তিনি। এরপর আর সামনে না যেতে পারলেনও থেমে থাকনেনি বাবা ইয়াকুব হোসেন বাবলা’র কাছে গানে হাতখড়ি হওয়া শবনম প্রিয়াংকার। বাবার পরও কিছুদিন গান শিখেছেন তিনি মিল্টন খন্দকারের কাছে।

বর্তমানে ছায়ানটে নজরুল সঙ্গীতের পাঁচ বছরের কোর্সের শেষ পর্যায়ে আছেন তিনি। জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি বিষয়ে অনার্স ফাইনাল ইয়ারের ছাত্রী শবনম প্রিয়াংকার প্রথম একক অ্যালবাম ‘নিমন্ত্রণ’ প্রকাশিত হয় ২০১৬ সালে। ২০১৮ সালে জহর কবিরের লেখা ও অভি আকাশের সুর করা ‘এক পৃথিবী ভালোবাসা’ গানটি তার সবচেয়ে হিট গান, প্রকাশিত হয় লেজার ভিশন থেকে। এর পরেও তার বাবার কথা ও সুরে ‘তোমার ইচ্ছেগুলো’ সঙ্গীতা থেকে প্রকাশিত হয়। শিগগিরই তার আরো তিনটি গান প্রকাশ পেতে যাচ্ছে। গানগুলো হচ্ছে রাজীবের সঙ্গে ‘রোজ রোজ তার ঘোরাঘুরি’। গানটি লিখেছেন ফাহমিদা রিসানা, সুর করেছেন ইয়াকুব হোসেন বাবলা। এছাড়াও উর্বশি গানের ফোরাম সিজন থ্রি ও রেইন মিউজিক থেকে আরো দু’টি গান প্রকাশ পাবে। পাঁচ বছর আগে শবনম প্রিয়াংকা ও তার বাবার কন্ঠে একটি গান প্রকাশিত হয়। গানটির শিরোনাম ‘পুতুল খেলা’। গানটি লেখা ও সুর করা অনুপম বিশ্বাস। এই গানটি অনেক শ্রোতা দর্শকের কাছে ভীষণ আবেগের। তৃতীয় শ্রেণী থেকেই একজন গায়িকা হিসেবে শবনম প্রিয়াংকার যাত্রা শুরু। ২০০৬ সালে তিনি প্রথম গান গেয়ে সম্মানী হিসেবে ১৮ হাজার টাকা পেয়েছিলেন। প্রিয়াংকা জানান তার লেখাপড়ার নেপথ্যে তার মা শরীফা সুলতানার ভূমিকা রয়েছে বেশি। আর গানের নেপথ্যে তার বাবারই ভূমিকা বেশি।

সঙ্গীত নিয়ে শবনম প্রিয়াংকা তার স্বপ্ন প্রসঙ্গে বলেন,‘ গানে আমার অনুপ্রেরণা শ্রদ্ধেয় সাবিনা ইয়াসমিন ম্যাডাম। তিনি বা তার মতো গুনী শিল্পীরা যেমন অনেক অনেক ভালো গান গেয়েছেন, সেসব গানই বেঁচে আছে আজও। আজও তাদের গান শোনার জন্য শ্রোতা দর্শকেরা ভীষণ আগ্রহ প্রকাশ করেন। আমিও ঠিক তেমনি কিছু ভালো গান গেয়ে যেতে চাই।’ প্রিয়াংকার ভালো বন্ধু তাসিন, শামীমা, উর্মি ও আলো। শবনম প্রিয়াংকার ছোট ভাই প্রিয়ন্ত। 

 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়