সুশান্তের জীবনের শেষ ১২ ঘণ্টা ও মৃত্যুর আগে ৪ ফোন কল

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৮:১২ পিএম, ১৫ জুন ২০২০

ভারতের নতুন প্রজন্মের অন্যতম জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।রোববার মুম্বাইয়ে বান্দ্রার নিজ বাড়ি থেকে তার গলায় ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

অভিনতা সুশান্ত সিং রাজপুতের জীবনের শেষ ১২ ঘণ্টার কার্যকলাপ খুঁটিয়ে দেখছে মুম্বই পুলিশ। পাশাপাশি, মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে তিনি  যে চারটি ফোন করেছিলেন সেইসব ফোনকল নিয়ে ভাবাচ্ছে পুলিশ।
পুলিশের প্রাথমিক ধারণা শ্বাসরোধেই হয়েছে বলে ময়না তদন্তের রিপোর্টে বলা হচ্ছে। তবে তাঁর শরীরে কোনও বিষ রয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

শনিবার রাত ১.৪৭ মিনিট নাগাদ বান্ধবী রিয়া চক্রবর্ত্তীকে  সুশান্ত  ফোন কেরছিলেন । কিন্তু ফোন তোলেননি রিয়া। এরপর সুশান্ত ফোন করেন তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু মহেশ শেট্টিকে। তিনিও ফোন তোলেননি।

রবিবার সকালে সুশান্তের মৃত্যুর কিছুক্ষণ আগে ফোনে মিস কল দেখে সুশান্তকে রিং ব্যাক করেন মহেশ। কিন্তু সুশান্ত সেই ফোন তোলেননি। পুলিশের কাছে মহেশ জানতে পারেন এদিন সকাল সাড়ে ৯ টায় নাগাদ সুশান্ত তাঁকে ফোন করেছিলেন। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পেরেছে, ঘটনার দিন ব্রেকফাস্টের আগে সুশান্ত জুস খায়েছিলেন।

এদিন সাড়ে ১০ টায় নাগাদ সুশান্তের গৃহ  পরিচারক কী রান্না হবে তা জানার জন্য সুশান্তের বেডরুমের দরজায় নক করেন।  এদিন সুশান্তের ফ্লাটে ছিলেন  তাঁর এক বন্ধু। তিনি ঘুমাচ্ছিলেন অন্য আরেকটি রুমে। তার ও তিনি ঘুম থেকে ওঠেন সকাল ১১টায়। তিনিও সুশান্তের দরজায় নক করেন। কোনও সাড়া না পেয়ে তাঁর ফোনে রিং করেন। ফোনের আওয়াজ পাওয়া গেলেও  দরজা খোলেননি সুশান্ত। এরপরই তাঁরা সুশান্তের বোন রীতুকে খবর দেন।

ফোন পেয়েই সুশান্তের ফ্লাটে চলে আসেন রীতু। তিনি আবার তাঁর স্বামীকে বিষয়টি জানান। রীতুর স্বামী গোটা ঘটনা জানান মুম্বইয়ের পুলিশ কমিশনার পরমবীর সিংকে। এদিন ১২টা ২৫ নগাদ সুশান্তের দরজা খোলা হয়। দেখা যায় সিলিংয়ের সঙ্গে গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে ঝুলছেন অভিনেতা।

এদিকে, মৃ্ত্যুর আগে মোট যে চারটি ফোন করেছিলেন সুশান্ত তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্ত্তীকে জেরা করা হতে পারে। পাশাপাশি সুশান্তের মৃত্যুর আগের ১২ ঘণ্টায় তাঁর প্রতিটি কার্যকলাপ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সূত্রঃ জি নিউজ।