এখনো জন্মদিনে প্রাণবন্ত ববিতা

প্রকাশিত: আগস্ট ০২, ২০২২, ০৭:৩৫ বিকাল
আপডেট: আগস্ট ০২, ২০২২, ০৭:৩৫ বিকাল
আমাদেরকে ফলো করুন

অভি মঈনুদ্দীন : গেলো ৩০ জুলাই ছিলো ববিতা’র জন্মদিন। দিনটি তার একমাত্র ছেলে অনিকের সঙ্গে উদযাপনের জন্য তিনি তার আগেই কানাডাতে চলে গিয়েছেন। অনিক সেখানে চাকুরী করছেন। কিন্তু মায়ের জন্মদিনে তার ছুটি ছিলো বিধায় মা’কে নিয়ে অনিক ঘুরে বেড়িয়েছেন ইচ্ছেমতো। জন্মদিনের পুরোটা সময়ই ছিলেন ববিতা বেশ প্রাণবন্ত। হোয়াটসআপে কানাডা থেকে ববিতা তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন,‘ এবার আসলে ইচ্ছেই ছিলো যে ছেলের সঙ্গে জন্মদিন উদযাপন করবো। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমার সেই মনোবাসনা পূর্ণ হয়েছে। জন্মদিনে পুরোটা সময়ই অনিককে পেয়েছি। অনিক আমাকে নিয়ে নানান জায়গায় ঘুরে বেরিয়েছে। মজার মজার খাবার খেয়েছি। আবার আমার খুউব প্রিয় বিভিন্ন ধরনের ফুল-ফল গাছ রোপন করা বা পরিচর্যা করা। অনিক আমাকে তাও কিনে দিয়েছে। সবমিলিয়ে আসলে অনেকদিন পর মনেরমতো একটি জন্মদিন উদযাপন করেছি। অনিকও আমাকে পেয়ে ভীষণ খুশি। আমি সবসময়ই কানাডাতে আসলে অনিকের প্রিয় প্রিয় খাবার রান্না করে দেই। আবার যখন
দেশে ফেরার সময় চলে আসে তখন সেসব খাবার রান্না করে বক্সে করে ফ্রিজে রেখে দেই। সেসব খাবারই অনিকের অনেকদিন চলে যায়।’ ববিতা জানান কানাডায় আরো কিছুদিন থাকার পর আগামী সপ্তাহে তিনি আমেরিকা যাবেন ভাইয়ের কাছে। সেখান থেকে আবারো কানাডায় ফিরে কিছুদিন থেকে তারপর চলতি বছরের শেষপ্রান্তে তিনি দেশে ফিরবেন। এদিকে আবারো সিনেমা দেখার জন্য দর্শক হলমুখী হয়েছেন এমন খবর শুনে ববিতা বেশ খুশী হয়েছেন। ‘পরাণ’ সিনেমার ব্যাপক সাফল্যের জন্য তিনি মিম’সহ এই সিনেমায় আরো যারা আছেন তাদের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন। সেইসাথে এমন সিনেমা যেন আরো নির্মিত হয়, হলে হলে দর্শকের এই উপচেপড়া ভীড় যেন অব্যাহত থাকে এমন আশাবাদই ব্যক্ত করেছেন তিনি। ববিতা সর্বশেষ নারগিস আক্তার পরিচালিত ‘পুত্র এখন পয়সাওয়ালা’ সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন। এরপর তিনি আর কোন সিনেমায় অভিনয় করেননি। সত্যজিৎ রায়ের ‘অশনি সংকেত’ সিনেমায় অভিনয় করে ববিতা আন্তর্জাতিক অভিনেত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পান। ১৯৭৩ সালে ‘বার্লিন
ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফ্যাস্টিভ্যাল’-এ এবং ১৯৭৪ সালে ‘শিকাগো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফ্যাস্টিভ্যাল’-এ ‘বেস্ট ফিল্ম’ হিসেবে স্বীকৃতি পায়। নারায়ণ ঘোষ মিতা’র ‘আলোর মিছিল’ সিনেমাতে অভিনয় করে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। এরপর পরপর আরো দু’বার মোহসীনের ‘বাদী থেকে বেগম’ ও আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ সিনেমার জন্য একই সম্মাননায় ভূষিত হয়ে হ্যাটট্রিক করেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়