প্লে-ব্যাকই বদলে দিচ্ছে আনিসা’র সঙ্গীত জীবন

প্রকাশিত: আগস্ট ০২, ২০২২, ১২:৩৬ দুপুর
আপডেট: আগস্ট ০২, ২০২২, ১২:৩৯ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

বিনোদন ডেস্ক: সিনেমার গান অর্থাৎ প্লে-ব্যাকে শ্রোতা দর্শকের পাশাপাশি প্রযোজক, পরিচালকের কাছে একজন নির্ভরযোগ্য শিল্পী হয়ে উঠতে পারাটা একজন শিল্পীর জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি। এই প্রজন্মের মিষ্টি কন্ঠের গায়িকা আতিয়া আনিসা’র সঙ্গীত জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিচ্ছে যেন সিনেমার গানই। বলা যায় এখন পর্যন্ত যতোগুলো সিনেমা’তে তিনি গান গেয়েছেন সবগুলো গানই শ্রোতাপ্রিয়তা পেয়েছে।

বিশেষত সর্বশেষ ‘পরাণ’ সিনেমায় জনি হকের লেখা ও নাভেদ পারভেজ’র সুর সঙ্গীতে ‘চলো নিরালায়’ গানটি গেয়ে আতিয়া আনিসা (সহশিল্পী অয়ন) বেশ আলোচনায় এসেছেন। ‘পরাণ’ সিনেমাটি যেমন প্রতিনিয়ত দর্শক দেখছেন, গানটিও শুনছেন মুগ্ধ হয়ে। কৌতুহলী হয়ে অনেকেই জানতে চাইছেন শিল্পী কে।

">ভিডিও দেখুন এখানে: 

 

ইউটিউবে সার্চ দিয়ে সবাই জেনে নিচ্ছেন আনিসা’র নাম। আর এভাবেই একজন শিল্পীর প্রতি শ্রোতা দর্শকের আগ্রহ জন্মায়। শিল্পীরও তখন দায়িত্ব বেড়ে যায় সিনেমাতে আরো ভালো ভালো গান করার। মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘যদি একদিন’ সিনেমায় আতিয়া আনিসা প্রথম প্লে-ব্যাক করেন। গানের শিরোনাম ‘চুপকথা’।

গানটি লিখেছেন জনিক হক, সুর সঙ্গীত করেছেন ইমরান মাহমুদুল। তিনি সহশিল্পীও ছিলেন। এরপর আনিসা ‘শাহেনশাহ’ সিনেমায় ‘তুই আমি চল’, ‘পাপ পূণ্য’ সিনেমায় ‘তোমার পাশে হাঁটতে দিও’, ‘সাত নম্বর ফ্লোর’ সিনেমায় ‘কোন ইশারায়’ এবং অনন্ত জলিল-বর্ষা অভিনীত ‘দিগন দ্য ডে’ সিনেমায় ‘তোকে রাখবো খুউব আদরে’ প্লে-ব্যাক করেন।

‘দিন দ্য ডে’ সিনেমার গানটির গীতিকার স্নেহাশীষ ঘোষ, ইমরান মাহমুদুলের সুর সঙ্গীতে আনিসা ইমরানের সঙ্গেই গানটি গেয়েছেন। এই গানটি বেশ সাড়া ফেলেছে দর্শকের মধ্যে। এই গানটি এরইমধ্যে ১৯ লক্ষেরও বেশি ভিউয়ার্স উপভোগ করেছেন। অন্যদিকে ‘চলো নিরালায়’ গানটি ৩৬ লক্ষরও বেশি ভিউয়ার্স উপভোগ করেছেন। বলা যায় প্লে-ব্যাকে আনিসার ভাগ্যটা বেশ সুপ্রসন্ন।

তাই বলা যায় প্লে-ব্যাকই বদলে দিচ্ছে গায়িকা হিসেবে আগামী দিনে তার পথ চলার হিসেব নিকেশ। আতিয়া আনিসা বলেন,‘ আরো ভালো ভালো গল্পের সিনেমার গানে প্লে-ব্যাক করতে চাই। ছোটবেলা থেকেই যেহেতু সিনেমায় গান গাওয়ার স্বপ্ন আমার, তাই একজন প্লে-ব্যাক সিঙ্গার হিসেবেই আমি প্রতিষ্ঠিত হতে চাই। সত্যি বলতে কী শিল্পী হিসেবে এটা আমার শুরুই বলা চলে।

আমি সবার সঙ্গেই কাজ করতে চাই। ভালো গান গাওয়ার অর্থাৎ আধুনিক গান ভালো হলে সেই গানটাও গাওয়ার আশা রাখি। তবে এটা ভীষণ সত্যি যে প্লে-ব্যাক করতে গেলে যে চরিত্রের জন্য গান গাইতে হয় তা নিয়ে এক্সপেরিম্যান্ট করতে হয়। গল্প এবং অভিনেত্রীর এক্সপ্রেসন বুঝে গান গাইতে হয়, এই বিষয়গুলো আমার কাছে ভীষণ ভালোলাগে। 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়