উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

ঢাকায় তালাশে দর্শক খরা! নামিয়ে দেওয়া হলো হল থেকে

প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২২, ০৫:৪৪ বিকাল
আপডেট: জুন ২২, ২০২২, ০১:০৯ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

আকাশ নিবির: রাজধানীসহ দেশের ৫৩টি হল এ গত শুক্রবার (১৭ জুন) মুক্তি পেয়েছে সৈকত নাসির পরিচালিত ছবি ‘তালাশ’। এ ছবিতে শবনম বুবলী’র সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন নবাগত আদর আজাদ। এতে আরও অভিনয় করেছেন আসিফ আহসান খান ও দীপক সুমন প্রমুখ। একজন নেশাগ্রস্থ রকস্টার প্রেমিকের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ছবিটি।

মুক্তির চতুর্থদিনে এসেও ছবিটি তেমন আশানুরূপ ব্যবসা করতে পারছে না। ঢাকার হল দর্শক খরায় পড়েছে ছবিটি। চিত্রামহল প্রেক্ষাগৃহে সরেজমিনে যেয়ে এর সততা মিলেছে। গত সোমবার (২০ জুন) দুপুর ১২টার শোতে ডিসি আর রিয়েলে উপস্থিত ছিলেন মাত্র কয়েকজন। এমন হাতে গোনা দর্শক নিয়ে শো চালানো হল ব্যবস্থাপনায় থাকা মুকুল মিয়া গোমড়া মুখে  দর্শকদের দায়ী করে বলেন, ‘প্রেক্ষাগৃহে ছবি না চলার জন্য দায়ী এন্ডয়েট ফোন ব্যবহারকারীরা। আজ হয়তো শো চালিয়ে এসির বিলটাও তোলা যাবে না।’

৩০ বছর ধরে এই হলে কাজ করা মুকুল আরও বলেন, ‘এই ছবির সবাই নতুন। নায়িকার অবস্থানও তেমন শক্ত নয়। কিভাবে হল মালিক ব্যবসা করবে। আমাদের লোকজন শুয়ে বসে দিন কাটাচ্ছে।’

এদিকে, শো দুপুর ১২.৩০ এ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও দর্শক কম থাকায় তা আরও ১৫ মিনিট দেরিতে শুরু হয়। এরপর ১৮ জন নিয়েই হল কর্তৃপক্ষ ছবি প্রদর্শন করেন। কেন ভালো চলছে না “তালাশ” এমন প্রশ্নের জবাবে টিকেট সেলার আবু ও ইমন নামের দু’জন কোন উত্তর দিতে চাননি।’

এদিকে, দর্শক না পাওয়ায় “তালাশ” ছবিটি হল থেকে নামিয়ে দেয়ার খবর পাওয়া গেছে। ময়মনসিংহ মুক্তাগাছার রুমা সিনেমায় ‘তালাশ’ মুক্তি পেলেও এখন আর চলছে না। এই ছবি চালিয়ে হল মালিক এতটাই হতাশ যে আগামী ঈদের পর হল বন্ধ করে দেওয়ার কথাও ক্ষোভের সঙ্গে জানান তিনি।

মুক্তাগাছা রুমা হল মালিক শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘তালাশ তো নামিয়ে দিয়েছি। তালাশের সেল নাই একদমই। আমরা এই ছবি চালিয়ে ঠেকে গেছি। তিনদিন পরই ছবিটি হল থেকে নামিয়ে এখন পুরোনো একটি ছবি চালাচ্ছি। যে পরিমাণ খরচ হয় প্রতি শো’তে তার এক ভাগও এই ছবি চালিয়ে উঠে আসেনি। কখনো দুই, কখনো তিন আবার কখনো চারজন দর্শক প্রতি শো’তে পেয়েছি। এভাবে একটা ছবি চালানো কি সম্ভব? আমি খুবই হতাশ এই ছবি চালিয়ে। তাই ছবিটি ঈদ পর্যন্ত চালিয়ে অন্য ব্যবসা বাণিজ্য করব। আমি আর হল চালু রাখব না। ছোট থেকে নেশা ছিল ছবির প্রতি। তাই এত লোকসান দিয়েও ছবি চালিয়েছি।’

এদিকে, ঈদে মুক্তি পাওয়া ছবিগুলো নিয়ে নতুন করে স্বপ্ন দেখেছিলেন হল মালিকরা। ছবি দেখতে হলে ফিরেছিলেন দর্শকরাও। এতে মৃত প্রায় ঢাকাই ছবির ভুবন কিছুটা হলেও মুখরিত হয়ে উঠেছিল ঈদের ছবি দিয়ে। তবে, সেই স্বপ্নের পালে হাওয়া লেগে বেশি দূর উড়তে পারেনি হল  মালিকদের প্রত্যাশার ঘুড়ি।

অন্যদিকে, ছবি মুক্তির প্রথম দিনে ঢাকঢোল পিটিয়ে নবাগত নায়ক আদর আজাদ ও চিত্রনায়িকা বুবলীসহ এই ছবির টিম হল এ দৌড়ালেও বৃষ্টির জন্য জমাতে পারেনি তেমন দর্শক!

সিনেপ্লেক্সগুলোর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ‘তালাশ’ মুক্তিতে তাদের তেমন ব্যবসা হচ্ছে না। হতাশ হয়েছে দর্শক। তাদের আশা ছিল নতুন জুটি হিসেবে দর্শক ছবিটি দেখবে। কিন্তু তা হচ্ছে না।

অনেকের ভাষ্যমতে, এই ছবিটি পিছিয়ে নেগেটিভ মার্কেটিংয়ের কারণে। একজন নায়ক নতুন হলেও একটি অ-সম্প্রচার কেন্দ্রে সহকর্মীর সাথে হাতাহাতির বিষয়টি মানতে নারাজ অনেকেই। তবে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, উত্তরাঞ্চল ও সিলেটের বন্যার কারণে খারাপ যাচ্ছে সদ্য মুক্তি পাওয়া এই ছবিটি।

তবে নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক এক প্রযোজক বলেন, ‘বাংলাদেশের দর্শকরা ছবি বোঝে না। এক শাকিব খানকে দিয়ে কি প্রেক্ষাগৃহ বাঁচানো সম্ভব! নতুনদের ছবিও তো দেখা উচিত?’ নতুনদের ছবি কেন দেখছেন না? তিনি আরও বলেন, ‘এই পরিচালকের সকল ছবি ব্যবসা সফল না হলেও তিনি নিঃসন্দেহে একজন ভাল মাপের পরিচালক। এত সুন্দর ছবি, তবুও দর্শক কেন “তালাশ” ছবিটি দেখছে না তা বোধগম্য নয়।’

এই ছবির পরিবেশক অভি কথাচিত্রের কর্ণধার জাহিদ হাসান অভি’র সাথে কথা বলে জানা গেছে, ‘ছবি মুক্তির দিন থেকেই সারাদিন বৃষ্টি। এর মধ্যেই ডিসিতে মোটামুটি ভালো দর্শক ছিলো হলগুলোতে। তালাশ ছবির রিভিউ সাধারণ দর্শকদের কাছ থেকে ভালো পেয়েছি। দর্শক ছবির গল্প ধরতে পেরেছে, তার জন্য তাদের অনেক ধন্যবাদ। সিনেপ্লেক্সেও ৫০ ভাগ দর্শক এসেছে সিনেমা দেখতে। এখন ছবির ব্যবসা আর হল কেন্দ্রিক নেই। ওটিটি, টেলিভিশনসহ অনেক মাধ্যম আছে ছবি দেখার জন্য। ৭-৮ বছর আগে ঈদে যেমন জমজমাট ছবির ব্যবসা হতো, এখন আর তেমন হয় না। তারপরও ‘তালাশ’ নিয়ে যতটা হয়েছে, আমরা খুশী। আগামী কয়েকদিনে আশা করি দর্শক হল এ আসবে।’

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়