জেলখানায় কাগজের ঠোঙা বানাতেন সঞ্জয় দত্ত

প্রকাশিত: জানুয়ারী ১১, ২০২২, ০৪:৫৪ দুপুর
আপডেট: জানুয়ারী ১১, ২০২২, ০৪:৫৪ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

জেলখানায় থাকতে কাগজের ঠোঙা বানাতেন বলিউড সুপারস্টার সঞ্জয় দত্ত। ২০১৮ সালের একটি টিভি শো’তে এসে তিনি জানান, কাগজের ঠোঙা বানিয়ে সাড়ে ৩ বা ৪ বছরে প্রায় ৫০০ রুপি আয় করেছিলেন তিনি। আর সেই অর্থের মূল্য তার কাছে ৫ হাজার কোটি রুপিরও বেশি।
আইন ভাঙা, বিতর্ক ও সঞ্জয় দত্ত যেন সমার্থক শব্দ। বারবার বেআইনী কাজের অভিযোগ ওঠে সুনীল দত্ত-নার্গিসের পুত্রের বিরুদ্ধে। ১৯৮০ সালের দিকে মাদকাসক্তি থেকে শুরু করে ১৯৯৩ সালে বেআইনী অস্ত্র রাখার অভিযোগে ২০০৭ সালে টাডা আদালত এই বলিউড সুপারস্টারকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে। ২০১৩ সালে সুপ্রিম কোর্ট এই রায় বহাল রাখলে আত্মসমর্পণ করেন সঞ্জয় দত্ত। ২০১৩-১৬ সাল পর্যন্ত পুনের ইয়ারওয়াদা সেন্ট্রাল জেলে ছিলেন তিনি।
২০১৮ সালে ‘এন্টারটেইন কি রাত’ নামক অনুষ্ঠানে জেল জীবন নিয়ে অনেক কথাই বলেন বলিউডের ‘মুন্নাভাই’। তিনি বলেন, আমরা খবরের কাগজ দিয়ে ঠোঙা বানাতাম। ঠোঙা প্রতি পেতাম ২০ পয়সা। প্রতিদিন ৫০ থেকে ১০০ টি ঠোঙা বানাতে হতো। সাড়ে তিন বা চার বছর এই কাজ করে ৪০০-৫০০ রুপি আয় করেছিলাম আমি। জেল থেকে বেরিয়ে সব অর্থই আমি তুলে দেই আমার স্ত্রী মান্যতার হাতে। কারণ, এই উপার্জন আমি আর কোথাও করতে পারতাম না। এই ৫০০ রুপি আমার কাছে ৫ হাজার কটি রুপির চেয়েও বেশি।
সঞ্জয় দত্ত আরও বলেন, জেলে চুপচাপ বসে কেবল কেন আমার সাথে এমনটি হলো ভাবা কোনোভাবেই উচিত নয়। কী হয়েছে না হয়েছে সব ভুলে যাওয়া উচিত। বরং সে সময়ের অভিজ্ঞতা থেকে ইতিবাচক কিছুই গ্রহণ করা উচিত।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়