‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর অবিচার কেন’

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৪, ২০২২, ০৪:৩৮ দুপুর
আপডেট: জানুয়ারী ২৪, ২০২২, ০৪:৩৮ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

‘করোনা পরিস্থিতির কারণ দেখিয়ে’ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন নারায়ণগঞ্জের সরকারি তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থবর্ষের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এসময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্থগিত পরীক্ষাগুলো নেওয়ার দাবি জানান তারা।

সুমা আক্তার নামের এক শিক্ষার্থী প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বছরের পর বছর ধরে নানান অজুহাতে এভাবে ঝুলিয়ে রাখা হচ্ছে। সেশনজটের সৃষ্টি করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাণিজ্য মেলা চলছে, পাবলিক বাস চলাচল পারছে। সবকিছুই চলছে, তাহলে আমাদের পরীক্ষা কেন স্থগিত? আমাদের পরীক্ষা কেন বন্ধ?’

শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান সুজন বলেন, ‘চতুর্থবর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়েছিল ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুন্দরভাবে পরীক্ষা চলছিল। পরীক্ষার হলে মাস্ক ছাড়া পরীক্ষা দিতে দেওয়া হবে না বলেও শিক্ষকরা কঠোর নির্দেশনা দেন। আমরাও তা মেনে চলি। এমন কঠোর নিয়মের মধ্যে আমরা পরীক্ষা দিয়েছি। এরপরও পরীক্ষা কেন স্থগিত?’

তিনি আরও বলেন, ‘পাবলিক এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালগুলো স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষার ঘোষণা দিয়েছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কেন পারবে না? আমাদের অনার্স কোর্স হচ্ছে চার বছরের। কিন্তু পাঁচ বছরের বেশি হয়ে গেলেও শেষ হচ্ছে না। আমাদের ওপরেই এই অবিচার কেন?’

করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এ অবস্থায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য জানানো হয়।


এতে বলা হয়, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে এসব পরীক্ষার সময়সূচি পরবর্তীতে জানানো হবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়