জীবিকার সংকটে দেশে ফেরা প্রবাসীরা

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ০৮:৫৫ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২০

করোনা ভাইরাসের কারণে উপার্জন ব্যবস্থা, সামাজিক সেবা, স্বাস্থ্য সেবা ও সামাজিক সহায়তায় নেটওয়ার্কের অভাবে হাজারও অভিবাসী কর্মি প্রবাস থেকে বাংলাদেশে তাদের জেলায় ফিরে আসতে বাধ্য হন। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে জুনের মধ্যে বিদেশ ফেরতদের প্রায় ৭০ শতাংশ বাংলাদেশি দেশে ফিরে কোনো কাজ পাচ্ছেন না। দেশের ১২ জেলার বিদেশ ফেরত অভিবাসীদের ওপর পরিচালিত এক গবেষণায় এমন তথ্য পেয়েছে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএস) এই গবেষণা প্রতিবেদনের কথা বুধবার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে। এ গবেষণাটি ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে পরিচালিত হয়েছে। আমরা বলতে চাই, যখন ফেরত আসা অভিবাসীরা জীবিকা, আর্থিক সংকট, স্বাস্থ্য-সংক্রান্ত বিষয়সহ পুনরেত্রীকরণে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখিন হচ্ছেন তখন বিষয়টি এড়ানোর সুযোগ নেই। একই সঙ্গে এটা বিবেচনায় রাখতে হবে, অপরিকল্পিত ও বৃহৎসংখ্যক জীবিকাহীন অভিবাসী কর্মি ফেরত আসায় সারা দেশে রেমিট্যান্স নির্ভর জনগোষ্ঠীর ওপরও বিরূপ প্রভাব পড়ছে। বলার অপেক্ষা রাখেনা করোনা মহামারির কারণে উপার্জন ব্যবস্থা, সামাজিক সেবা, স্বাস্থ্য সেবা এবং সামাজিক সহায়তার নেটওয়ার্কের অভাবে হাজারও অভিবাসী কর্মি প্রবাসে যে দেশে কাজ করছিলেন, সেখান থেকে বাংলাদেশে তাদের জেলায় ফিরে আসতে বাধ্য হন। আইওএস বাংলাদেশের মিশন প্রধান গিওরগি জানান, সাক্ষাতকারে ৭৫ শতাংশ অভিবাসী, তারা আবার অভিবাসনে আগ্রহী। তাদের মধ্যে ৯৭ শতাংশই করোনা প্রাদুর্ভাবের আগে যে দেশে কাজ করতেন, সে দেশেই আবার যেতে চান। অন্যদিকে ৬০ শতাংশ অংশগ্রহণকারী আরও ভালো বেতনের চাকরি নিশ্চিন্তে তাদের দক্ষতা বাড়াতে আগ্রহী। এটাও বলা দরকার, দেশে করোনায় প্রকোপ শুরুর পর থেকেই নিম্ন-আয়ের বহু মানুষ বেকার হয়ে পড়েছেন। ক্রমে ক্রমে বেকার হচ্ছে নিম্ন মধ্যবিত্ত, মধ্যবিত্তদের অনেকে। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের এটা পর্যবেক্ষণ করতে হবে যে, বিদেশ ফেরতাদের প্রায় ৭০ শতাংশ বাংলাদেশি দেশে ফিরে কোনো কাজ পাচ্ছেন না- যে বিষয়টি এড়ানোর কোনো সুযোগ নেই।