ফেলে দেওয়া স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ১১:১৮ এএম, ২৯ এপ্রিল ২০২০

বিভিন্ন হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্য কর্মিদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই), মাস্ক, গ্লোভস ব্যবহারের পর যখন ফেলে দেওয়া হয়, তখন সেগুলো মেডিকেল বর্জ্য হিসেবে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় ডাম্পিং করার কথা। কিন্তু এ নিয়ম অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মানা হচ্ছে না। আর সে সুযোগ নিচ্ছে একটি চক্র। চক্রটি ব্যবহৃত এসব সামগ্রী সংগ্রহ করে, নামমাত্র পরিষ্কার করে সেগুলোই আবার বেশি দামে বাজারজাত করছে বলে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। আর এ হীনকর্মে যোগসাজস রয়েছে খোদ হাসপাতালেরই অর্থলোভী কিছু অসাধু কর্মচারির। তাদের মাধ্যমে এসব বর্জ্য ডাম্পিংয়ে না গিয়ে ফের নতুন হিসেবে ফিরে আসছে বিক্রির জন্য। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঢাকার শীর্ষ স্থানীয় হাসপাতাল সহ বিভিন্ন চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে পুরনো সরঞ্জাম সংগ্রহ করে পুনরায় বিক্রি করা হচ্ছে। পুরান ঢাকার মিটফোর্ড ওষুধ মার্কেট, কামরাঙ্গীর চর, কেরানীগঞ্জের বিভিন্ন চক্রের কাছে এসব পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে, যা শেষ পর্যন্ত সাধারণ মানুষসহ চিকিৎসকদের কাছে বিক্রি করা হচ্ছে। করোনায় সংক্রমণ রোধে সরকার নিয়েছে অনেকগুলো জরুরি পদক্ষেপ। ইতিমধ্যে রাজধানীর কয়েকটি হাসপাতালকে ঘোষণা করা হয়েছে করোনা বিশেষায়িত হাসপাতাল হিসেবে। সাধারণ রোগীদের স্থানান্তর করে এসব হাসপাতালে শুধু করোনা রোগীদেরই চিকিৎসা করা হচ্ছে। হাসপাতালগুলোতে নেই পর্যাপ্ত ডিসপোজাল সুবিধা। এ অবস্থায় এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী ব্যবহৃত পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) মাস্ক গ্লোভস ধুয়ে আবার বিক্রি করছে। এতে করে সংক্রমণ সংখ্যা মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছে অভিজ্ঞ চিকিৎসক মহল। এসব অসাধু ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযান অব্যাহত থাকলেও হাসপাতালে ব্যবহৃত সামগ্রীগুলো কীভাবে বাইরে চলে আসে? ব্যবহৃত পিপিই ও মাস্ক যথাযথ ধ্বংস অত্যন্ত জরুরি।