গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ

প্রকাশিত: জানুয়ারী ২৩, ২০২১, ০৩:০০ দুপুর
আপডেট: জানুয়ারী ২৩, ২০২১, ০৩:০০ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

কক্সবাজারের মহেশখালীর মাতারবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বেলুনে ভরার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে তিনজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সকালের দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। এখানে একটি মেলা চলছিল। মেলায় বেলুন বিক্রেতার সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। গৃহস্থালি, যানবাহন ও বাণিজ্যিক কাজে কয়েক বছরে দেশে সকল প্রকার গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে বাজারে সব কোম্পানি মান বজায় না রাখায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দুর্ঘটনা এবং এতে হতাহতের সংখ্যাও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। পত্র-পত্রিকার খবর অনুযায়ী গত ১০ বছরে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ সংক্রান্ত নয় শতাধিক দুর্ঘটনায় দেড় হাজার মানুষ হতাহত হয়েছেন। গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে বছরে গড়ে পাঁচ-ছয়টি বড় ধরনের ঘটনা ঘটছে। বিস্ফোরণে বছরে গড়ে নিহত হন ৫০-৬০ জন। বেলুন ফোলানোর গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে প্রাণহানির ঘটনা নতুন নয়। সিলিন্ডার থেকে বেলুনে গ্যাস ভরা বেআইনি। নিয়মিত পরিচর্যার অভাবেই বিস্ফোরণের ঘটনাগুলো ঘটছে বলে প্রতীয়মান হয়।

সিলিন্ডার যেন প্রাণঘাতী না হয়ে ওঠে, তার জন্য যন্ত্রের নিয়মিত পরীক্ষা- নিরীক্ষা ও পরিচর্যা প্রয়োজন। নিয়ম অনুযায়ী প্রতি পাঁচ বছর পর গ্যাস সিলিন্ডার পরীক্ষা করার কথা। বিস্ফোরক অধিদপ্তরে এই পরীক্ষার রিপোর্ট জমা দেয়ার কথা। আমরা মনে করি, এই বিস্ফোরণোন্মুখ পরিস্থিতি থেকে পরিত্রাণ পেতে আইনগত ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম জরুরি। আইন করে সিলিন্ডারের ফিটনেস এবং সিলিন্ডার রিটেন্ট করানো বাধ্যতামূলক করা গেলে এ ধরনের ঘটনা কিছুটা হলে কমবে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। ঝুঁকিপূর্ণ কিংবা মেয়াদোত্তীর্ণ ও নিম্নমানের সিলিন্ডার কারো জন্যই নিরাপদ হতে পারে না। সুতরাং এ বিষয়টিকে হেলাফেলা করারও সুযোগ নেই। আমরা সব ধরনের সিলিন্ডারকে ঝুঁকিমুক্ত দেখতে চাই।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়