পোশাক কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত হয়নি: বিজিএমইএ

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ১১:৫৩ পিএম, ২৫ এপ্রিল ২০২০

ঢালাওভাবে পোশাকশিল্পের কারখানা কাল থেকে খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছে মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। এ কারণে গ্রামে থাকা শ্রমিকদের কর্মস্থলে না আসার অনুরোধ জানিয়ে বলা হয়, মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে তাদের বেতন পৌছে দেয়া হবে। তবে যেসব শ্রমিক কারখানা এলাকায় বসবাস করছেন তাদের দিয়ে সীমিতভাবে কারখানা চালু করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে।

শিগগিরই স্থানীয় শ্রমিক দিয়ে স্বাস্থ্য বিধি মেনে তৈরি পোশাক কারখানা চালু করতে চায়, তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএ। একই সঙ্গে গ্রামে থাকা শ্রমিকদের এখনই কর্মস্থলে না আসার অনুরোধ করেছে সংগঠনটি। কারখানা মালিকরা জানিয়েছেন, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সব শ্রমিকের বেতন পরিশোধ করা হবে।

শুক্রবার নিজস্ব ওয়েবসাইটে এক বার্তায় এ তথ্য জানায় বিজিএমইএ। এদিকে, কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত না হওয়ায় শ্রমিকরাও ফেরেনি তাদের কর্মস্থল জেলাগুলোতে।

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে দেশজুড়ে সাধারণ ছুটি ঘোষণা হয় ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত, বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয় পোশাক কারখানাও । এরপর গত বুধবার সাধারাণ ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয় ৫ মে পর্যন্ত। তবে নির্দেশনায় বলা হয়, এ সময়ে শ্রমিকদের নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করে ওষুধ ও রপ্তানিমুখী শিল্পের কারখানা চালু রাখা যাবে। সে অনুযায়ী আগামীকাল তৈরি পোশাক কারখানা খোলা রাখার সুযোগ থাকলেও, এ ধরনের কোন সিদ্ধান্ত এখনও নেয়া হয়নি, জানিয়েছে বিজিএমইএ।

এক বার্তায় বিজিএমইএ জানায়, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে কারখানা খোলার নির্দেশনা দেবে বিজিএমইএ। এই নির্দেশনা পাওয়ার আগ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সব তৈরি পোষাক কারখানা। নির্দেশনা পাওয়ার আগে গ্রামে থাকা পোশাক শ্রমিকদের ঢাকায় না আসার অনুরোধও জানিয়েছে সংস্থাটি। কোনো কারখানা খোলা রাখার কারণে এই বিরুপ পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের ঢাকায় আসতে হলে তার দায় বিজিএমইএ নেবে না বলে জানানো হয়।

পর্যায়ক্রমে এলাকাভিত্তিক পোশাক কারখানা খোলার নির্দেশনা দেয়া হবে। শুরুতে সীমিত আকারে কারখানা খোলা রাখা হবে। প্রথম পর্যায়ে কারখানার কাছাকাছি থাকা শ্রমিকদের কারখানায় যোগদান করতে বলা হতে পারে বলেও জানায় বিজিএমইএ।

এদিকে, কারখানায় যোগ দিতে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসছেন সাভার ও গাজীপুরের পোশাক কারখানার কিছু শ্রমিক। মানবিক বিবেচনায় কোনো শ্রমিককে ছাটাই না করার অনুরোধও জানিয়েছে বিজিএমইএ।


আরও পড়ুন